• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফরিদপুর সদর উপজেলার ৪ টি ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণ

ত্রাণ বিতরণ করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা

জিল্লুর রহমান রাসেল, ফরিদপুর প্রতিনিধিঃ 
করোনা ভাইরাসের কারণে অবরুদ্ধ থাকা ও রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।
আজ ফরিদপুর সদর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে এ ত্রাণ বিতরণ করা হয়। ফরিদপুর সদর উপজেলা প্রশাসন ও পরিষদ কর্তৃক প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল হতে প্রাপ্ত চাল, ডাল, আলু করোনার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়াদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। বুধবার সকালে সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল, চাঁদপুর, মাচ্চর ও কৃষ্ণ নগর ইউনিয়ন এলাকার সাত শতাধিক পরিবারের মাঝে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি তেল, ১ কেজি আলু ও সাবানের একেকটি প্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে।

এ সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আঃ রাজ্জাক মোল্লা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুম রেজা, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ সহ উপজেলা আনসার ও ভিডিপির সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলার নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে ত্রাণ বিতরণের সময় উপজেলা নির্বাহি অফিসার মাসুম রেজা বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে সরকার সকলকে ঘরে থাকতে বলেছে। বর্তমানে করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক হচ্ছে নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রাখা। সব রকমের সামাজিক অনুষ্ঠান বর্জন করতে হবে। এতে আপনারা যে সংকটের মধ্যে পড়েছেন বা অর্থনৈতিক সমস্যার মধ্যে পড়েছেন সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ওয়াকিবহাল আছেন আর তাই সরকার সব ধরনের সুযোগ সুবিধা আপনাদের দিবেন। আজ প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকেই এই ত্রাণ সামগ্রী আপনাদের দেওয়া হচ্ছে। আপনারা যারা আজ নিচ্ছেন তারা বাড়ি গিয়ে খোজ নিবেন আর কেউ না খেয়ে আছে কিনা। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ একটি মানুষও যেন না খেয়ে থাকে। যে পরিমান খাদ্য দেশে মজুত আছে তাতে কমপক্ষে আগামী ৬ মাস আপনাদের কোন চিন্তা করতে হবে না।
বাংলাদেশে করোনা চিকিৎসায় ১১হাজার স্বেচ্ছাসেবক চিকিৎসক দল
ত্রাণ বিতরণের সময় কথা হয় ত্রাণ নিতে আসা একজন বৃদ্ধের সংগে, তিনি বলেন, আমরা পদ্মার চরের মানুষ, কৃষি কাজ করে খাই কিন্তু যা শুনতেছি তাতে আমরা কোথাও যেতেও পারি না আর ফসলাদিও বিক্রি করতে পারিনা। টাকা পয়সার অভাবে খুবই সমস্যার মধ্যে আছি। এখন সরকার আমাদের ত্রাণ দিতেছে তাই কিছুটা হলেও আমাদের দুঃখ দুর হবে। সরকার যদি আর একটু খেয়াল করতো তাহলে আমাদের আর কোন সমস্যাই হইতো না। প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই তিনি আমাদের মত গরিবদের নিয়েও ভাবেন, আমরাতো ভয়ে ছিলাম যে না জানি বাল বাচ্চা নিয়ে কতদিন অনাহারে থাকা লাগে, কিন্তু এখন সেই ভয় কেটে গেছে। আল্লাহর রহমতে শেখের বেটির উছিলায় আমাদের আর না খেয়ে থাকা লাগবে না।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

নভেম্বর ২০২০
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« অক্টোবর  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।