• ঢাকা
  • বুধবার, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
ফরিদপুর মধুখালীতে রিক্সা চালক হত্যার ঘটনায় আটক-৬ জন

নিরঞ্জন মিত্র(নিরু)ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি:

ফরিদপুরের মধুখালী মালেক শেখ (৫৫) নামের এক রিক্সা চালককে হত্যা করে রিক্সা ছিনতাইয়ের ঘটনায় ৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতদের কাছ থেকে ব্যাটারী চালিত রিক্সা উদ্ধার করা হয়।

(৬ সেপ্টেম্বর ) সোমবার দুপুরে ফরিদপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক প্রেস কনফারেন্সর মাধ্যমে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন পুলিশ সুপার মোঃ আলিমুজ্জামান বিপিএম-সেবা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(অপরাধ ও তদন্ত) মোঃ জামাল পাশা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো: তরিকুল ইসলাম, মধুখালী সার্কেল সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সুমন কর প্রমূখ।

আটককৃতরা হলেন, ফরিদপুরের বোয়ালমারীর থানাধীন দেবকীনন্দনপুর গ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে আলমগীর শেখ (৫০) ও হাসামদিয়া গ্রামের মৃত সিদ্দিক বিশ্বাস এর ছেলে লিয়াকত বিশ্বাস (৩৪), এবং ফরিদপুর সদরের ফতেপুর গ্রামের মৃত সুমন শেখের ছেলে মিলন শেখ(৩৩), মধুখালী উপজেলার মেছড়দিয়া গ্রামের মৃত পাঁচু শেখের ছেলে আব্দুর রহমান (৩৫), ও রাজবাড়ী জেলার কালুখালী থানাধীন মাঝবাড়ি গ্রামের মৃত মোকছেদ বিশ্বাসের ছেলে কোরবান বিশ্বাস(৩০), এবং পাপনা জেলার ইশ্বরদী থানাধীন দিঘা গ্রামের মৃত আবুল কাশেম ঘরামীর ছেলে আব্দুল মান্নান ঘরামী(৫৫)।

আটককৃতদের কাছে থেকে ছিনতাই হওয়া রিক্সা উদ্ধার করা হয়। আটককৃতরা রিক্সা চালক মালেক শেখকে হত্যার দায় স্বীকার করে পুলিশের কাছে জবানবন্দি দিয়েছে বলে পুলিশ প্রেস ব্রিফিংয়ে দাবী করেন।

পুলিশ জানায়, ফরিদপুর পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় মধুখালী সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ও মধুখালী থানার অফিসার ইনচার্জের কৌশলগত নেতৃত্বে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার ও বিশ্বস্ত সোর্সের মাধ্যমে কাজ শুরু করে। পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রথীন্দ্রনাথ তরকদার সহ মধুখালী থানার একটি চৌকস টিম হত্যার প্রকৃত রহস্য উদঘাটনে ধারাবাহিকভাবে কাজ করে। এরই ফলশ্রুতিতে তদন্তে প্রাপ্ত তথ্য ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে গত (২৬ আগস্ট) থেকে ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে এই আসামীদেরকে আটক করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রথীন্দ্রনাথ তরোকদার বলেন, ২৬ আগস্ট আসমী আলমগীরকে আটককরে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। বাদবাকি আটককৃত পাঁচ জনকে আজ সোমবার দুপুরে ফরিদপুর কোর্টে প্রেরণ করেছি।

সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: শহিদুল ইসলাম বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় হত্যা ও ছিনতাইসহ সাতটি মামলা রয়েছে। এরা একটি চক্রের মাধ্যমে বিভিন্ন সময়ে অপরাধ সংঘটিত করে আসছে।

উল্লেখ্য, গত (১১ আগস্ট) ফরিদপুরের মধুখালী পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের গোন্দারদিয়া এলাকার বাসিন্দা পেশায় একজন রিক্সা চালক। তাকে থানাধীন রায়পুর ইউনিয়নের ব্যাসদী নামক এলাকায় রিক্সা চালকে হত্যা করে রিক্সা ছিনতাই করে দুর্বৃত্তরা।পরের দিন ওই রিক্সা চালকের লাশ উদ্ধার করে মধুখালী থানা পুলিশ।

এ ঘটনায় (১৩ আগস্ট) মালেক শেখের ছেলে মোঃ শহিদুল শেখ মধুখালী থানায় একটি এজাহার দায়ের করে। যাহার মামলা নং-০৬,ধারা-৩০২/৩৯৪/২০১/৩৪ পেনাল কোড রুজু হয়।
এসময় ফরিদপুরের কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

সেপ্টেম্বর ২০২১
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« আগষ্ট  
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০