• ঢাকা
  • সোমবার, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জুন, ২০২১ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
দেশের সূর্য সন্তানদের বিষয়ে অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না -নিক্সন চৌধুরী এমপি

ফরিদপুর-৪ আসনের জনপ্রিয় সাংসদ মজিুবর রহমান চৌধুরীর বাস ভবনে শনিবার সন্ধ্যায় মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময় সভা হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, দেশের সূর্য সন্তানদের যে কোন বিষয়ে কোন ধরনের অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না। যাদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমাদের স্বাধীনতা তাদের বিষয়ে বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে সব পদক্ষেপ নিয়েছে তাদের জীবনযাত্রাকে সহজ করে দিতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। আর সেই সুযোগে কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক ব্যাক্তি ফায়দা লুটে দেশ ও জাতির সূর্য সন্তানদের সাথে বেঈমানি করছেন তাদের বিচারের আওতায় আনা হবে। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ঘর তৈরী করার জন্য যে অর্থ বরাদ্দ করেছেন তা সঠিকভাবে যাচাই বাছাই করে প্রকৃত অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে বিতরন করতে হবে। রাতের আধারে মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে নগত অর্থ হাতিয়ে নিয়ে স্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের ঘর বিতরন এটা হতে দেওয়া হবে না। এমপি নিক্সন চৌধুরী এসময় উপস্থিত শত শত মুক্তিযোদ্ধাদের তাদের সুখ দুখের কথা মনযোগ দিয়ে শুনেন।
ভাঙ্গা উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল বাসার অনেক আক্ষেপ করে বলেন, বর্তমান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রকিুবর রহমান খান তিনি তার স্বেচ্ছাচারিতার প্রকাশ করে মুক্তিযোদ্ধাদের ঘর বিতরনে ব্যাপক অনিয়ম করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে প্রকৃত অসহায় মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ঘর গুলো বিতরনের আহবান করেন এবং যেসব মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে অনৈতিক ভাবে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে তা ফেরৎ দেওয়ারও আহবান করেন তিনি।
অপরদিকে কালামৃধা ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুর মোহাম্মদ বলেন, গত মাসে কালামৃধা ইউনিয়নে ফকির জাহাঙ্গির নামে এক ব্যাক্তি মারা যায়। সে সঙ্গীত শিল্পি ফকির আলমগীরের ভাই। বর্তমান নির্বাহী কর্মকর্তা রকিবুর রহমান খান ফকির আলমগীরের কথামত তাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে রাষ্ট্রীয় মযার্দা শেষে দাফন করেন। অথচ এই ফকির জাহাঙ্গির কোন মুক্তিযোদ্ধাই না। এমনকি সে তালিকাভুক্ত কোন কিছুতেই তার নাম নেই। বিষয়টি নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। কমান্ডার আবুল বাসার বর্তমান ইউএনও মহোদয়কে এবিষয়ে প্রশ্ন করতেই তিনি ধমক দিয়ে বলেন সে বড় একজন মুক্তিযোদ্ধার ভাই তাই তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রদান করা হয়েছে। অথচ লাখো শহিদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত লাল সবুজের পতাকাকে সে অবমাননা করে এবং উল্টো প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের ধমক দেন এটা কেমন বিচার। তিনি ফরিদপুর-৪ আসনের জনপ্রিয় সাংসদ নিক্সন চৌধুরীর মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে পতাকা অবমাননা দায়ে বর্তমান ইউএনও রকিবুর রহমান খানের বিচার দাবি করেন।
এছাড়াও অনেক মুক্তিযোদ্ধা তাদের সুখ দুখের কথা ও প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের সরকারি সাহায্য সঠিক ভাবে বন্টনের দাবি করেন।
সকল বিষয় শুনে এমপি নিক্সন চৌধুরী তাদের আশ্বাস দেন এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসব বিষয়ের সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ করেন। একজন ইউএনও তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার করেই যাচ্ছেন অথচ তাকে কেউই কিছুই করতে পারছেনা সব ধরা ছোয়ার বাইরে থেকেই যাচ্ছেন এটা হতে পারেনা। এমপি নিক্সন চৌধুরী হুশিয়ারী দিয়ে বলেন, জাতির শ্রেষ্ট সন্তান ও ভাঙ্গা বাসিকে নিয়ে বানিজ্য করলে তার পরিনতি ভালো হবেনা। প্রয়োজনে সব শ্রেনীর জনগনকে সাথে নিয়ে মানববন্ধন সহ যে কোন কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ফাইজুর রহমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও ফরিদপুর-৪ আসনের এমপি নিক্সন চৌধুরীর উদ্দেশ্যে বলেন, ভাঙ্গা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নিয়ে একটি মহল প্রশাসনকে সাথে নিয়ে অর্থ বানিজ্যে লিপ্ত হয়েছে। যাচাই বাছাই করলে সেখানে অনেক ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা পাওয়া যাবে। প্রশাসন যেসব মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে নিয়ে এসব অপকর্ম করছে অনতিবিলম্বে তাদের বিচারের আওতায় আনা হোক।
মতবিনিময় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস, এম হাবিবুর রহমান, সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ প্রমুখ।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

জুন ২০২১
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« মে  
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০