• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
তথ্য গোপন করে আলফাডাঙ্গা সাব রেজিস্ট্রার অফিসে দলিল সম্পন্ন!

আলমগীর কবির, আলফাডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ
ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলায় জমি ও দ্বিতল ভবনের তথ্য গোপন করে সাব রেজিস্ট্রার অফিসে দলিল সম্পন্ন করা হয়েছে।

এতে সরকারের রাজস্ব প্রায় ৩ লক্ষ টাকা ফাঁকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। সাব রেজিস্ট্রার অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ সালে ২৬৭৭ নং সাব- কবলা দলীলে গ্রহীতা মো. মহিদুল ইসলাম ও দাতা মো. আউব আলী কর্তৃক একটি দলিল সম্পন্ন হয়েছে।

আলফাডাঙ্গা সদর বাজার জামে মসজিদের সামনে তিনতলা ভবনের দ্বিতল বিশিষ্ট বিল্ডিং এর জমির বিএস ১৪ নং দাগের জমি ৩ শতাংশ। যাহার ভবনের ১৮ শত স্কয়ার ফিট এর পরিবর্তে দলিলে দেখানো হয়েছে ১৩ শত স্কয়ার ফিট, যাহার বাজার দর মূল্য ৫৮ লক্ষ টাকা হলেও দলিলে দেখানো হয়েছে ৫১ লক্ষ টাকা। এছাড়াও বিল্ডিং এর মূল্য ২২ লক্ষ টাকার স্থানে দলিলে দেখানো হয়েছে ১৫ লক্ষ টাকা।

দাতা এবং গ্রহীতা তথ্য গোপন করে ৫৩ এফ এম ও ভ্যাট সরকারি রাজস্ব না দিয়া দলিল সম্পন্ন করা হয়েছে। সরকার বঞ্চিত হয়েছে প্রায় ৩ লক্ষ টাকা রাজস্ব থেকে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক দলিল লেখক সাংবাদিকদের জানান, দলিল লেখক মুন্সি শহিদুল ইসলাম গ্রহীতার সাথে আতাত করে যোগসাজগে তথ্য গোপন করে ভ্যাট ও আইকর ফাঁকি দিয়ে সরকারকে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত করেছে।

এ বিষয়ে দলিল লেখক সমিতির সভাপতি মুন্সি শাহাদাত হোসেন বলেন, দলিল সম্পন্ন করতে সরকারের ফিস, ভ্যাট, স্ট্যাম্প ও ৫৩ এফ এম ফি সঠিকভাবে পরিশোধ করতে হয়। তবে এই দলিলে কিছু অনিয়ম হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। দলিল লেখক মুন্সি শহিদুল ইসলাম বলেন দাতা ও গ্রহীতা যে তথ্য আমাকে দিয়েছে আমি তার আলোকে দলিল সম্পন্ন করেছি।

আলফাডাঙ্গা সাব রেজিস্ট্রার আবুল বাশার সাংবাদিকদের জানান, দলিলে যদি রাজস্ব ফাঁকি হয়ে থাকে ভ্যাট ও আইকর কম দিয়ে থাকে, তাহলে গ্রহীতার নিকট থেকে বাকি রাজস্ব আদায় করা হবে। গ্রহীতা মোঃ মহিদুল ইসলাম বিদেশ থাকায় তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

ডিসেম্বর ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« নভেম্বর  
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।