• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২২ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
ফরিদপুরের আবাসিক হোটেল গুলোতে হচ্ছেটা কি?

ডিবি পুলিশের অভিযান অব্যাহত

বিজয় পোদ্দার, ফরিদপুর :

ফরিদপুরের আবাসিক হোটেল গুলোতে হচ্ছে টা কি? সেবার অন্তরালে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকার অভিযোগে মাঝে মধ্যেই আইনগত ব্যবস্থার সম্মুখিন হতে হচ্ছে অনেককেই। মাঝে মধ্যে পুলিশের অভিযান থাকলেও অবৈধ ব্যবসা থেকে সরছে না ব্যবসায়ীরা।

বিভিন্ন আবাসিক হোটেল গুলোতে তরুন ও উঠতি বয়সের ছেলেদের আড্ডা ও আনা গুনা লক্ষ করা যায়। এই সব হোটেল গুলোতে কলগার্ল ও দেহ ব্যবসায়ী নারীদের অবস্থান থাকে আর এই ব্যবসার নেপথ্যে বিশেষ কৌশলে গড়ে ওঠে ইয়াবা ও মাদকের ব্যবসা।

দিন দিন যুব সমাজ এই ফাঁদে পা দিয়ে অন্ধকার জগতে আসক্ত হয়ে পড়ে। মাদক ব্যবসার নেপথ্যের গড ফাদাররা তাদের সিন্ডিকেটের মাধ্যমে প্রথম অবস্থায় কয়েকদিন তরুন সমাজকে ফ্রি মাদক সেবন করিয়ে গ্রুপ সদস্য করে বলে অভিযোগ রয়েছে। এরপর সপ্তাহ খানিক পর আসক্ত হয়ে পড়া তরুনরাই তাদের পিছু পিছু ছোটে।

মুঠো ফোনে বাবা, খালাম্মা, ছোট মাছ, ওস্তাদ,এক গোলাপসহ বিভিন্ন ছদ্দ নামে ইয়াবা কেনা বেঁচা হয়ে থাকে। এই ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসার নানা কৌশল হিসাবে আবাসিক হোটেল, নিষিদ্ধ পল্লী এলাকাকে গুরুত্ব দিয়ে থাকে।

এছাড়া এই সিন্ডিকেট মোটরসাইকেল বাহিনী ও নারী সদস্য রয়েছে। নাম না প্রকাশ করার শর্তে অনেকে বলেন শহরের হাজী শরীয়তুল্লাহ বাজার সংলগ্ন কয়েকটি আবাসিক হোটেল, রথখোলা যৌন পল্লী,অসংখ্য হোটেলে দেহ ব্যবসা হয়ে থাকে।

আর এই দেহ ব্যবসার পাশাপাশি আশে পাশে ছড়িয়ে থাকে মাদক ব্যবসায়ীরা। কলগার্ল সরবরাহের ক্ষেত্রে বিশেষ ধরনের দালাল চক্র রয়েছে। যারা কমিশনের ভিত্তিতে কলগার্ল সরবরাহ করে থাকে।

সাম্প্রতিক সময়ে পুলিশী অভিযানে অসংখ্য মাদক বিক্রেতা আটক হয়ে জেলা হাজতে গেলেও, এদের গডফাদাররা কৌশল পরিবর্তন করে।

নানা পথে, নানা আঙ্গিকে মাদক আসে ফরিদপুরে। গত কয়েক সপ্তাহে ডিবি পুলিশের ওসি বেশ কিছু মাদক ব্যবসায়ী ও মাদকের চালান আটক করে।

মাদক ব্যবসা এখন শহর থেকে গ্রাম পর্যায় চলে গেছে। যুব সমাজ মাদকের ফাঁদ থেকে বের হয়ে আসতে পারছে না। সচেতন মহল মনে করে ফরিদপুরে দিন দিন মাদকের থাবা যে ভাবে স্বপ্নকে ছিরে খাচ্ছে তাতে আগামী প্রজন্মের জন্য অশনি সংকেত অপেক্ষা করছে। সেই সাথে তারা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের কাছে অনুরোধ করেছেন মাদক ও অসামাজিক ব্যবসার নেপথ্য গড ফাদারদেরকে শান্তির আওতায় আনার।

গত ২ ফেব্রুয়ারি ফরিদপুর ডিবি পুলিশ বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপ ও মাদক সেবনের অপরাধে ফরিদপুর ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৩৩ জনকে আটক করেছে।

গত মঙ্গলবার ও বুধবার ২ দিনে শহরের গোয়ালচামট হোটেল হ্যাভেন থেকে ১০ জন ও বুধবার শরীয়তুল্লাহ বাজারের উত্তর অংশে পার্ক প্যালেজের পিছনে নূর হোটেলসহ বেশ কিছু হোটেল থেকে ২৩ জনকে আটক করে।

ডিবি পুলিশের ওসি সুনীল কুমার কর্মকার জানান, গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে নারী ১০ জন ও পুরুষ ২৩ জন রয়েছে। পাঁচ জনের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা বাকীদের বিরুদ্ধে মাদক সেবন ও অসামাজিক কার্যকলাপের অপরাধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ফরিদপুর পুলিশ সুপারের নির্দেশে আমরা অভিযান অব্যাহত রেখেছি কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। অপরাধী যত কৌশলী হোক তাদের আইনগত শান্তি পেতে হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

নভেম্বর ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« অক্টোবর  
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।