• ঢাকা
  • রবিবার, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং
রাজবাড়ীতে বারি উদ্ভাবিত হলুদ ও সরিষার উৎপাদন কার্যক্রমের উপর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

নিরঞ্জন মিত্র (নিরু)

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি), ফরিদপুর সরেজমিন গবেষণা বিভাগ ( সগবি) এর উদ্যোগে বারি উদ্ভাবিত হলুদ ও সরিষার উৎপাদন কার্যক্রমের উপর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১২ জানুয়ারি মঙ্গলবার রাজবাড়ী সদর উপজেলার সাদীপুর গ্রামে এই মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়। ফরিদপুর সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, (বারি) এর অঞ্চল প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. সেলিম আহম্মেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী জেলার হর্টিকালচাল সেন্টারের উপ পরিচালক মোঃ হারুন-অর-রশিদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ফরিদপুর মসলা গবেষণা উপকেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আলাউদ্দিন খান।

এসময় মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট গ্রাম ও পার্শ্ববর্তী গ্রাম থেকে আগত অর্ধ শতাধিক চাষী ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ ফরিদপুরের সগবি, বারি, মাঠ পর্যায়ে কর্মরত বৈজ্ঞানিক সহকারীবৃন্দ ও স্থানীয় উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে মোট ৫০ জন কৃষক ও কিষাণী অংশগ্রহন করেন।

মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, রাজবাড়ী জেলায় প্রায় ১৩০০ হেক্টর জমিতে হলুদের আবাদ হয়। বারি হলুদ-৪, ৫ এবং স্থানীয় জাত দ্বারা হলুদের উপযোগিতা যাচাই পরীক্ষায় সরেজমিনে দেখা যায়, বারি হলুদ-৪ এর ফলন প্রতি শতাংশে ১১২ কেজি যা স্থানীয় জাতের হলুদের চেয়ে প্রায় ৭৫% বেশী ফলন দিয়ে থাকে। এছাড়াও বারি হলুদ-৫ এর ফলন স্থানীয় জাতের ফলনের মতোই কিন্তু হলুদের অন্তর রং গাঢ় কমলা হলুদ। এছাড়াও তিনি আরও বলেন, কৃষকরা তাদের প্রচলিত সরিষা-পাট-রোপা আমন ফসলধারার মাধ্যমে মাঝারী উঁচু জমিতে বছরে তিনটি ফসল আবাদ করে থাকেন। কিন্তু তারা খুব সহজেই বারি (সরিষা ও তিল) ও ব্রি উদ্ভাবিত (আউশ ও আমন) চার ফসল ভিত্তিক ফসল ধারার মাধ্যমে জমির সুষ্ঠ ব্যবহার, রোগ বালাই প্রতিরোধ, মাটির পুষ্টি সুষম বন্টন এবং শ্রমজীবি ও কৃষিজীবি মানুষ সারা বছর কাজের সুযোগ তৈরী করতে পারেন। রবি মৌসুমে বারি উদ্ভাবিত স্বল্পমেয়াদী ও অধিক ফলনশীল সরিষার জাত বারি সরিষা-১৪ আবাদে কৃষকেরা স্থানীয় জাতের চেয়ে প্রায় ৪০ ভাগ ফলন বেশী পায়। তিনি বারি উদ্ভাবিত হলুদ বারি হলুদ-৪ ও ৫ এবং বারি সরিষা-১৪ আবাদে আহ্বান জানান।

অংশগ্রহনকারী কৃষকগণের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ প্রদান করেন। তাঁদেরকে সহায়তা করেন বৈজ্ঞানিক সহকারীবৃন্দ। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনকারী কৃষকগণ বারি উদ্ভাবিত বারি হলুদ-৪ ও ৫ এবং বছরে একই জমিতে চার ফসল উৎপাদনের প্রতি কৌতুহলী হন এবং এর সুবিধা-অসুবিধা, আয়-ব্যয় ইত্যাদি সম্বন্ধে সম্যক ধারনা লাভ করেন। তারা আগামী বছর বারি হলুদ-৪, ৫ এবং বারি সরিষা-১৪ এর বীজ প্রাপ্তিতে কৃষি বিভাগের প্রতি অনুরোধ করেন।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

জানুয়ারি ২০২১
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« ডিসেম্বর  
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।