• ঢাকা
  • সোমবার, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ ইং

হুমকীর মুখে পদ্মা রক্ষা বাঁধ প্রকল্প

চরভদ্রাসনে পদ্মা রক্ষা বাঁধ ঘেষে বালু উত্তোলনের মহোৎসব

চরভদ্রাসন (ফরিদপুর) প্রতিনিধি
ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা সদর ইউনিয়নের সুপারী বাগান গ্রামে নদী পার এলাকায় পদ্মা রক্ষা বাঁধ প্রকল্প ঘেষে দিনরাত বেকু মেশিন দিয়ে গভীর গর্ত করে বালু উত্তোলনের মহোৎসব চালানো হচ্ছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করে চলেছে। নদীর কোল এলাকায় গভীর গর্ত করে মাটি খননের ফলে চরম হুমকীর মুখে পড়েছে উপজেলার সহ¯্র কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত একমাত্র পদ্মা রক্ষা বাঁধ প্রকল্পটি। স্থানীয় মাটি ব্যবসায়ী আবুল খায়ের ও কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা পদ্মা রক্ষা বাঁধ এলাকা থেকে মাটি খনন করে ট্রাকযোগে বিভিন্ন স্থানে পাচার করছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিদেশে ট্রেনিংরত থাকার সুযোগে পদ্মা রক্ষা বাঁধ প্রকল্প এলাকা থেকে বীনা বাঁধায় বালু উত্তোলন করছে স্থানীয় বালু ও মাটি ব্যবসায়ীরা। এতে করে সম্প্রতী উপজেলার অস্তিত্ব টিকে থাকার প্রশ্ন উঠেছে জনমনে।
এ ব্যপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) খাইরুল ইসলাম জানান, “আমিও অফিসিয়াল ট্রেনিংয়ের কাজে ৪০ দিনের জন্য সাভারে চলে যাচ্ছি। ওই গ্রামের পদ্মা রক্ষা বাঁধ প্রকল্প এলাকায় মাটি খননের খবর পেয়ে আমি সরেজমিনে গিয়েছি। বালু ব্যাবসায়ীরা গভীর গর্ত করে বালু উত্তোলন করে চলেছে। আমি খননরত জমির মালিক ও ব্যাবসায়ীদের বালু উত্তোলন বন্ধের জন্য অফিসে ডেকেছি”।
আর উপজেলায় দায়িত্বরত ফরিদপুর পাউবো’র প্রকৌশলী আলতাফ হোসেন বলেন, “উপজেলার সুপারী বাগান গ্রামের পদ্মা রক্ষা বাঁধ প্রকল্প এলাকা থেকে মাটি খনন বন্ধের জন্য আমি উর্দ্ধতনদের অবগত করেছি”।
আর বালু ব্যাবসায়ী আবুল খায়ের জানান, “ আমি শুধু বেকু মেশিনের মালিক। বাঁধ এলাকার পার্শ্ববতী জমির মালিকরা আমার বেকু মেশিন দিয়ে মাটি খনন করে নিজেদের প্রয়োজনে ট্রাকযোগে সরবরাহ করে চলেছে”।
সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, গত উক্ত গ্রামের মধ্যে দিয়ে উপজেলার প্রধান সড়ক ছেড়ে প্রায় সাড়ে ৩শ’ মিটার উত্তর দিকে পদ্মা নদীর তীর ঘেষে গড়া হয়েছে বাঁধ নির্মান প্রকল্প। এ বাঁধ প্রকল্প ও পাকা সড়কের মধ্যবর্তি বিভিন্ন স্থান জুড়ে মাটি ব্যাবসায়ীরা দিনরাত বালু উত্তোলন করে চলেছে । এতে বর্ষা মৌসুমে পদ্মা নদীর কড়াল ¯্রােতে পদ্মা রক্ষা বাঁধ প্রকল্পটি চরম হুমকীর মুখে পড়তে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করে চলেছেন এলাকাবাসী। এছাড়া পদ্মা পারে খননরত জমির আশপাশের ফসলী মাঠগুলো পদ্মা ভাঙনের হুমকীর মুখে পড়বে বলে কৃষকরা বালু উত্তোলন বন্ধের দাবী জানিয়েছেন।
উক্ত এলাকার এক কৃষক জলিল মন্ডল (৬০) জানায়, “ আামাদের ফসলী জমির পাশ দিয়ে গভীর গর্ত করে খনন করা হচ্ছে তাতে বর্ষা মৌসুমে পদ্মার কড়াল ¯্রােতে আশপাশের ফসলী জমিগুলো ভাঙার সম্ভাবনা রয়েছে”।
এক গ্রামবাসী মোশারফ হোসেন (৫৫) জানায়, “পদ্মা নদী বেষ্টিত অত্র উপজেলাবাসীর শত বছরের চাওয়া পাওয়া পদ্মা রক্ষা বাঁধ নির্মান। গত বছর সেই পদ্মা রক্ষা বাঁধ নির্মান প্রকল্প সম্পন্ন করা হয়েছে। স্থানীয় কিছু বালু ব্যাবসায়ীদের হীনকর্মকান্ডে এখন উপজেলার অস্তিত্ব রক্ষা হুমকীর মুখে পড়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

জুলাই ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জুন    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।