• ঢাকা
  • সোমবার, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ ইং
পাহাড়ী ছাগল দিয়ে যুদ্ধ!

সুইজারল্যান্ডের গ্রুয়ার রাজ্যে ঘটেছিল এক ব্যতিক্রমী ঘটনা। সালটা ছিল ১৪৯৯। সে সময় গ্রুয়ার শহরে হামলা চালায় পার্শ্ববর্তী বার্নিজ উপজাতিরা। নিজের দেশ রক্ষার জন্য গ্রুয়ার রাজ্যের মানুষও ঝাঁপিয়ে পড়ল যুদ্ধে। সব পরিবারের পুরুষরা তখন ঘর ছেড়ে যুদ্ধে যোগ দিল। প্রাণপণ যুদ্ধ করেও তাদের অবরোধ কিছুতেই ভাঙ্গতে পারছিল না গ্রুয়াররা। বার্নিজ উপজাতিরা ক্রমশ এগিয়ে যেতে লাগল তাদের দিকে। গ্রুয়ার শহরটা ছিল একটা পাহাড়ের ওপর। আর বার্নিজদের অবস্থান ঠিক পাহাড়ের নিচে। ওখান থেকেই তারা ধীরে ধীরে সামনের দিকে অগ্রসর হচ্ছে দেখে গ্রুয়ায় রাজ্যের প্রতিটি বাড়িতে থাকা নারীরা চিন্তায় পড়ে গেল। রাতে শহরের সব নারী গোপনে এক বৈঠক করল। কি করে বার্নিজদের আক্রমণ থেকে বাঁচা যায় তাই-ই ছিল ওই বৈঠকের মূল বিষয়। অবশেষে তারা এক অভিনব সিদ্ধান্ত নিল। গ্রুয়ার রাজ্যের সবাই ছিল ছাগল পালক। তাদের আয়ের প্রধান উৎস ছিল পশুচারণ। সবার ঘরে দশ থেকে বিশটি করে ছাগল থাকত। নারীরা সবাই মিলে হাজার খানেক ছাগল একত্র করল। পাহাড়ী ছাগল হওয়ায় শিংগুলোও বেশ বড় বড় ছিল। নারীরা প্রতিটি ছাগলের মাথার বড় শিংয়ের সঙ্গে দুটো করে মশাল বেঁধে দিল। এরপর গভীর রাতে মশালে আগুন ধরিয়ে সেগুলোকে ছেড়ে দিল বাইরে। ছাগলগুলো দৌড়াতে লাগল। অনেকদিন ধরে তারা মাঠে চরতে পারে না বলে মনের খুশিতে ছাগলগুলো পাহাড়ের ঢাল বেয়ে নিচে নামতে লাগল। সে দৃশ্য দেখে বার্নিজরা অনেক ভয় পেয়ে গেল। তারা আবার ভূতে বিশ্বাস করত। যেজন্য ভূতের ভয় তাদের পেয়ে বসল। দূর থেকে কিছু বোঝারও উপায় ছিল না। হাজার হাজার আলোকে পাহাড় বেয়ে নামতে দেখে তারা ভূতের আক্রমণ মনে করল। তখনই ঘটল একটা বিস্ময়কর ঘটনা। শয়তান ভেবে তারা যে যার মতো অস্ত্র ফেলে দৌড়ে পালিয়ে গেল। সকালে গ্রুয়াররা দেখল সব বার্নিজ উধাও। আর তাদের ছাগলগুলো মনের আনন্দে ঘাস খেয়ে বেড়াচ্ছে। তাদের শিংয়ে তখনও মশালগুলো বাঁধা ছিল। বাড়ি ফিরে নিজেদের স্ত্রীর কাছ থেকে ঘটনার পুরোটা জানতে পেরে শহরজুড়ে হাসির রোল পড়ে গেল। -ইন্ডিয়া টাইমস

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

জুলাই ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জুন    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।