• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৪ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ইং
ভাঙ্গায় গভীর রাতে অগ্নিকান্ডে ১৬টি দোকানঘর পুড়ে ছাই

ছবি-আগুনে ক্ষতিগ্রস্হ্যদের দেখতে উপজেলা চেয়ারম্যান এস,এম হাবিবুর রহমান ঘটনাস্হলে  পরিদর্শন করেন।

ভাঙ্গায় গভীর রাতে অগ্নিকান্ডে ১৬টি দোকানঘর পুড়ে ছাই

  ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার তুজারপুর ইউনিয়নের উচাবাজারে সোমবার গভীররাতে অগ্নিকান্ডে ১৬টি দোকান ঘর পুড়ে ছাই হয়েছে। অগ্নিকান্ডে ২৮জন ব্যবসায়ীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মালামাল সহ পুড়ে যায়। প্রাথমিক ভাবে ক্ষয়-ক্ষতির পরিমান কোটি টাকার উপরে বলে জানিয়েছে ক্ষতিগ্রস্হ্য  ব্যবসায়ীগন।

বৈদুত্যিক শট-সার্কিট থেকে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সদরপুর ও ভাঙ্গা ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিটের ভোর পর্যন্ত সময় লেগেছে। আগুনে দোকানঘর গুলোর ভেতরে থাকা মালামাল সহ দোকান ঘরসহ পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

এতে করে নিঃস্ব হয়েছে ক্ষতিগ্রস্হ্য  প্রতিটি দোকানদান। ভাঙ্গা ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন ইনচার্জ সজিবুর রহমান জানায়, রাত পোনে দুইটার দিকে আগুন লাগার সংবাদ পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্হলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে চেষ্টা করি। পরিস্হিতি আমাদের নিয়ন্ত্রেনের বাহিরে যাওয়ার আশংকায় সদরপুর থেকে আরো দুটি ইউনিট কর্মী এনে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনি।

অগ্নিকান্ডের সংবাদ পেয়ে ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস,এম হাবিবুর রহমান ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মানস বসু মঙ্গলবার সকালে ঘটনাস্হল পরিদর্শন করেন। এসময় চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান বলেন, অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ফরিদপুর-৪ আসনের জনপ্রিয় সাংসদ মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন আমাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন দ্রুত ক্ষতিগ্রস্হদের তালিকা তৈরী করে তাদের পাশে দাড়িয়ে সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়াতে।

তার নির্দেশে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদ ঘটনাস্হল ভাঙ্গায় গভীর রাতে অগ্নিকান্ডে ১৬টি দোকানঘর পুড়ে ছাই পরিদর্শন শেষে ক্ষতিগ্রস্হ্যদের  তালিকা তৈরী করি। আগামী বৃহস্পতিবার মাননীয় সাংসদ নিক্সন চৌধুরী ক্ষতিগ্রস্হ্যদের  সাহায্য প্রদান করবেন। 

 

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মানস বসু জানায়, সচেতনার অভাবেই অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত হয়ে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছে ব্যবসায়ীরা। ক্ষতিগ্রস্হ্যদের  ব্যবসায়ীরা হলো, কামরুল তালুকদার, শেখ ফজলুল হক, সাইদুর মাতুব্বর, আরিফ ফকির, লিয়াকত, নুর আলম. ইউনুস, ডাঃ বিপ্লব কুমার দাস, পচা মিয়া, মাছুদ ফকির, আরিফ মিয়া, সুপল পাল, মিন্টু পাল, তোফাজ্জেল হোসেন, বাদল ঠাকুর, বিপ্লব মালাকার, নেপাল মালাকার, শাহাদাৎ সর্দার, সেকেন্দার আলী ফকির, আব্দুল মাতুব্বর, নুরু মাতুব্বর, বন্ধন দাস, রমেন সেন, রহিম মাতুব্বর, জগন্নাথ পাল, লিয়াকত খান, সাইফুল ইসলাম ও বাশার মাতুব্বর। এসব ব্যবসায়ীরা মুদি দোকান, জুতা সেন্ডেলের দোকান, চাউলের দোকান, ফার্মেসী সহ বেশ কয়েকটি গুদাম ঘরে ব্যবসা করত।

 

 

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

ফেব্রুয়ারি ২০২১
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« জানুয়ারি  
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।