• ঢাকা
  • সোমবার, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ ইং
ভাঙ্গায় রাতের আধাঁরে মুক্তিযোদ্ধার জমি দখল করে ঘর উত্তোলন

ছবিতে অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক ফকির তার জমির উপর অসহায়ের মত দাড়িয়ে আছে। পাশেই দখলকৃত একচালা টিনের ঘর।

মোঃ রমজান সিকদার, ভাঙ্গা(ফরিদপুর)প্রতিনিধি-১৭/০২/২০২৩

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় রাতের আধাঁরে বীর মুক্তিযোদ্ধার জমি দখল করে ঘর উত্তোলন করেছে আওয়ামীলীগ নেতা ও একজন সরকারি কর্মকর্তা। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে এদের নেতৃত্বে ৩০/৪০ জনের একটি দল মুক্তিযোদ্ধার জমিতে ঘর উত্তোলন করে ফেলে। শত বাধা দেওয়া সত্ত্বেও অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক ফকির তাদের ফেরাতে পারেনি। অবশেষে সরকারি জরুরি সেবা ৯৯৯ ফোন করায় ভাঙ্গা থানা পুলিশ হাজির হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আওয়ামীলীগ নেতা ও সরকারি কর্মকর্তা তার লোকজন নিয়ে এলাকা থেকে চলে যায়।
থানার উপ-পরিদর্শক অপুর্ব কুমার বাইন জানায়, জরুরী সেবায় কল করাতে আমরা ঘটনাস্থলে পৌছে যাই। সেখানে বীর মুক্তিযোদ্ধার জমিতে যারা ঘর উত্তোলন করতে ছিল আমাদের দেখে তারা পালিয়ে যায়। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজণীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক ফকির জানায়, ৫৬ নং চুমুরদী মৌজার বি,এস নং-১১৬৭ ও ৩৪০২ দাগে আমার ও আমার ছোট ভাইয়ের ১০ শতাংশ রেকর্ডিও জমি রয়েছে। সিডরের ঝড়ে সেই জায়গার উপর বাজারের একটি বৃহৎ বটগাছ উপরে পড়ে। সেসময় আমার দোকানঘর সম্পুর্ন ভেঙ্গে যায়। আমি লিখিত আকারে ভাঙ্গা সহকারি কমিশনার ভুমি ও ভাঙ্গা ফায়ার সার্ভিসে দরখাস্ত করি। তারা গাছটি অপসারন করলেও গোড়ার অংশ থেকে যায়। তারই পাশে সরকারি ভাবে দেওয়া একটি আর্সেনিকমুক্ত টিউবয়েল রয়েছে। যা থেকে প্রতিদিন শত শত লোকজন পানি নিত। বৃহস্পতিবার রাতে হঠাৎ উজ্জ্বল মোল্লা ও সরকারি কর্মকর্তা চন্দন মিয়া তার লোকজন নিয়ে সমস্ত জায়গা জুড়ে একচালা ঘর উত্তোলন করে। আমি তাদের শত বাধা দেওয়া সত্ত্বেও ফেরাতে পারি নাই। অবশেষে পুলিশ এসে আমাকে সাহায্য করে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার আকুর আবেদন আমি একজন বয়স্ক অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হওয়া সত্ত্বেও এসব ভুমি দখলদারদের কাছ থেকে মুক্তি পাচ্ছিনা। অনতি বিলম্বে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার অসহায় পরিবারটিকে রক্ষা করবেন আশা করি।
বিষয়টি নিয়ে আওয়ামীলীগ নেতা উজ্জ্বল মোল্লা ও সরকারি কর্মকর্তা চন্দন মিয়ার সাথে কথা বললে তারা জানায়, ঐ জমি সরকারি জায়গা। এলাকার লোক হয়তবা দখল করেছে। এটা প্রশাসন দেখবে। তাছাড়া ঐখানে আমাদের কোন জমি নেই। তাই আমরা কোন ঘর উত্তোলন করি নাই। কারা ঘর উত্তোলন করেছে আপনারা তদন্ত করে বের করুন।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

জুলাই ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জুন    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।