• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের

চরভদ্রাসনে সালিশ বৈঠকের মধ্যে হামলা, আহত-৩

চরভদ্রাসন (ফরিদপুর) প্রতিনিধি ঃ

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা সদরে বিএস ডাঙ্গী গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জ্বের ধরে গত শনিবার দুপুরে সালিশ বৈঠকের মধ্যে হামলার শিকার হয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা মৃত ঈমান শিকদারের দুই ছেলে মোঃ টিটু শিকদার (৪৫) মোঃ সাদ্দাম শিকদার (২৮) ও তাদের ভাতিজা ইশতিয়াক (২০)।

আহতরা ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহতদের মধ্যে মোঃ টিটু শিকদারকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে বলে জানা গেছে। জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জ্বের ধরে একই গ্রামের প্রতিপক্ষ মৃত আমিন মোল্যার ছেলে কামাল মোল্যা (৪৮) সিদ্দিক মোল্যা (৫২) সিরাজ মোল্যা (৩৭) ও শিহাব মোল্যা (২৫) তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা রাম দ্যা, চাপাতি, লোহার রড সহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর এলোপাথারী আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে।

এ ব্যপারে চরভদ্রাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জাকারিয়া হোসেন জানান, “ আহতরা জেলা শহরে চিকিৎসাধীন রয়েছে, তারা থানায় এলেই মামলা নিবো”।

জানা যায়, কিছুদিন ধরে দু’পক্ষের মধ্যে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। ঘটনার দিন দুপুরে বিরোধীয় জমির পাশে উন্মুক্ত ময়দানে স্থানীয় গণ্যমান্যরা দু’পক্ষের বিরোধ নিরসনের লক্ষ্যে এক সালিশ বৈঠক বসে। সালিশ বৈঠকের সভাপতিত্ব করেন উপজেলা সদর বাজারের শরীফুন বেকারীর মালিক হাজ্বী সানাউল্লাহ মোল্যা।

সালিশ বৈঠকের সিদ্ধান্ত মোতবেক বিরোধীয় জমির সীমানা নির্ধারন করে খুটি পুততে গেলে প্রতিপক্ষরা বাক-বিতন্ডা সৃষ্টি করে এবং দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলা চালায়। এতে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের তিনজন আহত হয়।

এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ কামাল মোল্যাকে জিজ্ঞেস করলে সে জানায়, “ মারামারির ঘটনাটি স্থানীয় গন্যমান্যদের মাধ্যমে আপোষ মিমাংষার কথা চলছে”। আর আহত পরিবারের ছোট ছেলে মোঃ তারেক শিকদার জানায়, “ আমরা ন্যায্য বিচার পাওয়ার আশায় ফরিদপুর পুলিশ সুপারের সাথে দেখা করেছি এবং আমরা অবশ্যই আইনের আশ্রয় নেবো”

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

ডিসেম্বর ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« নভেম্বর  
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।