• ঢাকা
  • বুধবার, ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
বন্ধ হয়ে যেতে পারে ফেসবুক!

ছবি প্রতিকী

এবার দ্বন্দ্বে জড়াল বিশ্বের বৃহত্তম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থা অ্যাপল। মার্কিন গণমাধ্যম আইএনসি ম্যাগাজিন এক প্রতিবেদনে এমনটাই দাবি করেছে। বলা হয়েছে, অ্যাপলের বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধে নেমেছে ফেসবুক। এ নিয়ে গভীর সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

এমনকি এও দাবি করা হচ্ছে যে, বন্ধ হয়ে যেতে পারে ফেসবুক।
জানা গেছে, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যমগুলোতে বেশ কয়েকটি পূর্ণ পৃষ্ঠার বিজ্ঞাপন প্রকাশ করেছে ফেসবুক। বিজ্ঞাপনগুলোর মাধ্যমে ফেসবুক মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থা অ্যাপলের গোপনীয়তার পরিবর্তন সংক্রান্ত নতুন নীতিমালাকে আক্রমণ করেছে।

ক্ষুদ্র ব্যবসাগুলোকে এই নীতিমালা  মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করবে জানিয়ে তাদের দাবি, ‘আরও খারাপ যা হতে পারে তা হচ্ছে, এটি আমাদের চির পরিচিত ইন্টারনেট ব্যবস্থাকে পরিবর্তন করবে’। তবে ফেসবুকের সাম্প্রতিক এই হতাশা অবাক করার মতো কোন বিষয় নয়। এটি বহু বছর আগে শুরু হওয়া ধারাবাহিক ইভেন্টের চূড়ান্ত পরিণতি।

ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ বলেছিলেন, ‘সমস্ত বাঁধা ভেঙে দ্রুত এগিয়ে যান। যদি আপনি বাঁধা না ভাঙেন, তাহলে আপনি যথেষ্ট দ্রত এগিয়ে যেতে পারবেন না।
’ গত কয়েক বছর ধরে ফেসবুকও এই নীতি মেনে চলেছে। যদিও এই নীতি ডিজাইনার এবং পরিচালকদের দিকনির্দেশনা দেয়ার উদ্দেশ্যে তৈরি হয়েছিল, তবে এটি সংস্থার মূলনীতির একটি অত্যাবশ্যক অংশে পরিণত হয়েছিল।
এটি ঠিক, ফেসবুক দ্রুত অগ্রসর হয়েছে এবং এ পথে তারা অনেক বাঁধাই ভেঙে এসেছে। তবে এর পাশাপাশি, সংস্থাটি তার ব্যবহারকারীদের আস্থার মতো গুরুত্বপূর্ণ জিনিসগুলো ভেঙে ফেলেছে। যাদের মধ্যে অনেকেই বুঝতে পেরেছিলেন যে ব্যবহারকারীদের জন্য ফেসবুক ‘ফ্রি’ হলেও থাকাকালীন তারা পণ্য হয়ে অর্থ প্রদান করছিলেন

উদাহরণস্বরূপ, বন্ধুবান্ধব এবং পরিবারের সাথে যোগাযোগ রাখার সুবিধার বিনিময়ে, একটি ব্যক্তিগতকৃত নিউজ ফিড রাখা এবং বিভিন্ন ভিডিও দেখতে বাধ্য হওয়ার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা অজান্তেই তাদের ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গি বিক্রি করে দিয়েছিল। ফেসবুক ব্যক্তিগত তথ্য ডেটা আকারে ব্যবহার করে যার উদ্দেশ্য প্রাসঙ্গিক বিজ্ঞাপন বিক্রি।

বিষয়টি বুঝতে পারার সাথে সাথে অনেকে ‘ফেসবুক মুছতে’ প্রচার শুরু করেছিলেন। কিন্তু ফেসবুক তার ক্রমবর্ধমান ব্যবহারকারীর ভিত্তিতে ‘নিউজ ফিড’ এর স্বীকৃতি দিতে মরিয়া ছিল। সর্বোপরি, সংস্থাটির বিরুদ্ধে একের পর এক কেলেঙ্কারির অভিযোগ উঠলেও কোটি কোটি মানুষ ফেসবুক ব্যবহার অব্যাহত রেখেছে।

ফেসবুকের জন্য সমস্যাটি হ’ল অ্যাপলের আপডেটটি ফেসবুক আসলে তাদের কতটা ট্র্যাক করছে সে সম্পর্কে প্রচুর ব্যবহারকারীকে জানিয়ে দিয়েছে এবং এর ফলে আরও অনেক ব্যবহারকারী ফেসবুক ব্যবহার বন্ধ করার বিষয়ে উৎসাহিত হতে পারেন। অ্যাপলের বিরুদ্ধে ফেসবুক এতটা কঠোর লড়াই করছে যে মনে হচ্ছে সংস্থাটি তার ব্যবসায়ের জন্য বিরাট আঘাতের প্রত্যাশা করছে।

ফেসবুক ইন্টারনেট ব্যবসার নতুন ধারার দিকে মনোনিবেশ না করে অ্যাপলের গোপনীয়তা নীতি নিয়ে লড়াই করে মূল্যবান সময় এবং অর্থ নষ্ট করছে। তারা এমন কিছুর বিরুদ্ধে লড়ছে যার উপরে তাদের কোনও নিয়ন্ত্রণ নেই এবং অ্যাপলের পরিবর্তিত হওয়ার সম্ভাবনা কম। ফলে ব্যবসায়ী নীতিতে আমূল পরিবর্তন না আনলে ফেসবুক অচিরেই আরও বড় সমস্যার মুখোমুখি হবে যার ফলে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

ডিসেম্বর ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« নভেম্বর  
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।