• ঢাকা
  • বুধবার, ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের পাশের হার শতভাগ, গড় মুল্যায়নের কারনে জিপিএ-৫ এর ছড়াছড়ি

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ অটোপাশের সুযোগে এইচএসসি পরীক্ষায় দিনাজপুরের শিক্ষাবোর্ডে শতভাগ পাশ দেখানো হলেও বেড়েছে জিপিএ ৫ প্রাপ্তির সংখ্যা। গেল ৫ বছরে বছর ওই হার ছিল ৭১ দশমিক ৭৮ শতাংশের মধ্যে।

জেএসসি এবং এসএসসির ফলাফল পর্যালোচনায় এবার রেকর্ড সংখ্যক শিক্ষার্থীর ফলাফলে জিপিএ ৫ এর যোগ হয়েছে। গেল বছর জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ৪ হাজার ৪৯জন।

সেই সংখ্যা বেড়ে এবার ছাড়িয়েছে ১৪ হাজার ৮৭১ জনে।

চলতি এইচএসসি পরীক্ষায় শিক্ষা বোর্ডে ৬৫৭টি কলেজ থেকে অংশ নিয়েছিল ১ লাখ ১৮ হাজার ৭৩৫জন শিক্ষার্থী। করোনার বিস্তার রোধে জন নিরাপত্তার স্বার্থে পরীক্ষা স্থগিতের কারনে নতুন নীতিমালা অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের আগের জেএসসি এবং এসএসসির ফলাফল মূল্যায়ন করে নম্বর ধরে দেওয়ায় বেড়েছে জিপিএ ৫ এর সংখ্যা।

এতে ফলাফল অবমূল্যায়ন ঘটেনি বলে স্বীকার করলেও অতি মূল্যায়ন ঘটেছে কিনা এ ধরনের প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গেছেন শিক্ষা বোর্ড কর্মকর্তারা। শতভাগ পাশের সংখ্যা দেখানোর কারনে শুন্য ফলাফল ঘোষনা করা হয়নি কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে। অন্যান্য বছর কেউ পাশ করেনি এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের রেকর্ডে নাম যুক্ত হলেও এবার সেই তালিকা থেকে রেহাই পেয়েছে নাম কায়াস্তে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো।

এইচএসসি পরীক্ষায় দিনাজপুর হলিল্যান্ড কলেজের অতীতের ধারাবাহিকতা অব্যাহত উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট পরীক্ষায় সাফল্যের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রয়েছে দিনাজপুর হলিল্যান্ড কলেজের।

দিনাজপুর হলিল্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর আলম জানান, এ বছর দিনাজপুর হলিল্যান্ড কলেজের ৩৭৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ-৫ অর্জন করেছে প্রায় ৭৩% শিক্ষার্থী। তার মধ্যে ২৩২ জন জিপিএ-৫ এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে যার শতকরা ৭২% বাকী ২৮% এ গ্রেড নিয়ে উত্তীর্ণ হয়। এ মাইনাস বা বি গ্রেড কেউ পায়নি। দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের যে অভাবনীয় ফলাফল অতীতের ধারাবাহিকতা আমরা অব্যাহত রেখেছি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের অতীতে যে ফলাফল ছিল শতভাগ পাশ এবং জিপিএ-৫ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সেটা এ বছরও অব্যাহত রয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

ডিসেম্বর ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« নভেম্বর  
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।