• ঢাকা
  • সোমবার, ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
সালথা’র মালঞ্চ বিলের সেতুর দুই পাশে সংযোগ সড়কের বেহাল দশা

মনির মোল্যা, সালথা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি:

ফরিদপুরের সালথা উপজেলার বুড়িদিয়া-খোয়াড় সড়কের মালঞ্চ বিলের ওপর নির্মিত সেতুর দুই পাশের সংযোগ সড়ক ভেঙ্গে গিয়েজ এখন বেহাল দশায় পরিনত হয়েছে। নেই যান চলাচলের কোন ব্যবস্থা। সংযোগ সড়কের এমন দশার কারণে ৫/৬ বছর ধরে সেতুটির ওপর দিয়ে সব ধরণের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে কয়েক গ্রামের হাজারো মানুষ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার গট্টি ও আটঘর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বুড়িদিয়া ও খোয়াড় গ্রামের মধ্যেদিয়ে বয়ে গেছে মালঞ্চ বিল। মালঞ্চ বিলের দক্ষিন পাশে রয়েছে সিংহপ্রতাপ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। এক যুগ আগে এই দুই ইউনিয়নের মানুষের যাতায়াতের জন্য বিলের ওপর নির্মাণ করা হয় একটি সেতু। সেতুর দুই পাশে ছিলো ইটের সংযোগ সড়ক। স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষের চলাচলের একমাত্র রাস্তা এটি। প্রায় ৫/৬ বছর ধরে সড়কের মাটি ভেঙ্গে সড়কটি নষ্ট হয়ে গেছে। সেই সাথে ইটগুলোও উধাও হয়ে গেছে। ফলে বিলের ওপর সেতুটি থাকলেও যান চলাচলে ব্যবহার হচ্ছে না। কোন মতে পায়ে হেটে চলাচল করছে জনসাধারণ। এলাকাবাসীর দাবী দ্রুত যেন সংযোগ সড়কটি মেরামত করা হয়।

সিংহপ্রতাপ বুড়িদিয়া এলাকার মিজানুর রহমান বলেন, সংযোগ সড়ক বেহাল দশা হওয়ায় প্রায় ৬ বছর ধরে সেতুর ওপর দিয়ে মানুষ পায়ে হেটে চলাচল করলেও যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। যান চলাচল বন্ধ থাকায় দুই ইউনিয়নের কয়েক গ্রামের হাজারো কৃষক তাদের কৃষিপন্য মাথায় করে নিয়ে বাজারজাত করছেন। শতশত শিক্ষার্থী যানবাহন ব্যবহার করে তাদের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে চলাচল করতে পারছে না।

খোয়াড় গ্রামের কৃষক আরশাদ মাতুব্বর ও স্থানীয় সাফিকুল ইসলাম বলেন, ব্রীজের সংযোগ সড়ক না থাকায় আমাদের চলাচলে অসুবিধা হচ্ছে। কৃষিপণ্য নিয়ে সালথা বাজারে যেতে হলে অন্য রাস্তা দিয়ে অনেক পথ ঘুরে যেতে হয়।

উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ তৌহিদুর রহমান বলেন, উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনা করে ওই সেতুর সংযোগ সড়ক দ্রুত মেরামত করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মনির মোল্যা
সালথা-ফরিদপুর
৩১ জুলাই ২০২২

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

আগষ্ট ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« জুলাই  
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।