• ঢাকা
  • সোমবার, ৭ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে জুন, ২০২১ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
ফরিদপুর আওয়ামী লীগের নতুন নেতৃত্বে কারা আসছেন! আলোচনার ঝড় সারা জেলায়

বিজয় পোদ্দার, ফরিদপুর :

ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের নতুন নেতৃত্ব নিয়ে সারা জেলায় আলোচনার ঝড় চলছে। কারা হচ্ছেন রাজনীতির নৌকার বৈঠা। জেলা কমিটির নেতৃত্বে পরিবর্তন আসতে পারে এমন আভাসের খবরে দলটির নতুন ও প্রবীন নেতারা লবিং শুরু করেছেন।

ফরিদপুরের রাজনৈতিক ইতিহাসে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গৌরব উজ্জ্বল ইতিহাস রয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে ফরিদপুরের সেই ধারাকে ব্যহত করে চেতনা বিরোধী একটি চক্র নানা অপকৌশল শুরু করলে তা প্রতিরোধে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সমৃদ্ধ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ফরিদপুরে চক্রান্তকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হয়। কেউ গ্রেফতার হন কেউ পালিয়ে যান। এরই মধ্যে দূর্যোগ মহামারী করোনায় পৃথিবীর নানা দেশের মতো বাংলাদেশেরও কার্যক্রম ব্যহত হয়। তারপরও ফরিদপুরের রাজনীতিতে একটা শক্তিশালী অবস্থান তৈরীর জন্য দলকে সক্রিয় করতে নেতৃবৃন্দ কাজ শুরু করেন। ফরিদপুর জেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে অনেক আগে। সম্মেলনের মাধ্যমে যখন নতুন কমিটি ঘোষণা হবে তখন করোনায় আয়োজন থমকে যায়। এখন নেতৃত্বের ক্ষেত্রে তৃণ্যমূল নেতাকর্মীদের দৃষ্টি দলীয় সভা নেত্রীর দিকে। নতুন কমিটি নিয়ে দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে আলোচনার ঝড় বৈছে। বর্তমান কমিটিতে সভাপতি পদে রয়েছেন এ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে রয়েছেন শিল্পপতি শামীম হক, সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন সৈয়দ মাসুদ হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক পদে রয়েছেন ঝর্না হাসান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক পদে রয়েছেন বর্তমান পৌর মেয়র অভিতাভ বোস, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক দিপক মজুমদারসহ অনেক নেতৃত্বে আসতে পারেন এমন আলোচনায় উল্লেখযোগ্য আরও নাম রয়েছে প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা বিপুল ঘোষ, এ্যাডভোকেট সামচুল হক ভোলা মাস্টার, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের নেতা সাইফুল আহাদ সেলিম, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক নেতা ফারুক হোসেনসহ বেশ কিছু নেতৃবৃন্দ।

ফরিদপুরের রাজনীতিতে লড়াই সংগ্রামের ইতিবিত্তে কেউ কারো চেয়ে কম নয়। কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে স্বাধীনতা বিরোধী, মৌলবাদ চক্রের অবস্থার প্রেক্ষিতে রাজ পথে কারা শক্ত অবস্থানে দলকে সুসংগঠিত করতে পারবেন এমন প্রশ্ন সবার। গত চল্লিশ বছর ফরিদপুরের আওয়ামীলীগ সংগঠন ও নেতাকর্মীদের পাশে ছিলেন শিল্পপতি শামীম হক। সুদুঢ় প্রবাসে বসেও তিনি আর্থিক মানুষিক ভাবে কাজ করেছেন। আর গত দুই বছর ধরে ফরিদপুরে অবস্থান করে সব ধরনের কার্যক্রম বেগবান ও সংগঠনকে শক্তিশালী করার কাজ করছেন। ফরিদপুর আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে বহুবার কারাবরণ ও ত্যাগের ইতিহাস রয়েছে বিপুল ঘোষের। পিতা প্রয়াত ভাষা সৈনিক ও সংসদ ইমাম উদ্দিন আহম্মেদের পুত্র সাইফুল আহাদ সেলিম সংগঠক হিসেবে কেন্দ্রীয় পর্যায়ে রাজনীতি করেন। কেন্দ্রীয় যুবলীগের বড় পদে থেকে সংগঠন করেছেন মোঃ ফারুক হোসেন। ফরিদপুরের চরাঞ্চলে সংগঠনকে চাঙ্গা করতে যে কয়জন কাজ করেছেন তাদের কয়েক জনের মধ্যে বর্তমান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট সামচুল হক ভোলা মাস্টার অন্যতম। প্রয়াত জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র হাসিবুল হাসান লাবলুর স্ত্রী ঝর্না হাসান বর্তমান জেলা পরিষদের সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক। ফরিদপুর পৌর সভার বর্তমান মেয়র অমিতাভ বোস সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন সংগঠনকে বিস্তৃত করার দক্ষতা তার রয়েছে। জেলা আওয়ামীলীগের শিল্প বাণিজ্য সম্পাদক দিপক মজুদার, হাতুরি বাহিনীর হাতে নির্যাতিত ও আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহর বিশ্বস্ত জন হিসাবে পরিচিত। এছাড়াও অনেক নেতৃবৃন্দ রয়েছেন যারা নতুন কমিটিতে আসার দৌড় ঝাপে কাজ করছেন। সাধারণ নেতাকর্মীদের দাবী জননেত্রী শেখ হাসিনা এমন বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দেবেন যে ফরিদপুরে বঞ্চিত ও ত্যাগী নেতা কর্মীদের মূল্যায়ন ও ফরিদপুরে আওয়ামীলীগকে শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে গড়ে তুলতে সক্ষম হবে। অনেক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দলীয় সভানেত্রী যেই সিদ্ধান্ত দেবেন আমরা তা মেনে নিয়ে কোন গ্রুপিং ছাড়াই কাজ করে যাবো।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

জুন ২০২১
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« মে  
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০