• ঢাকা
  • শুক্রবার, ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মে, ২০২১ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের চিন্তাপ্রসূত উদ্ভাবনী পরিকল্পনা ‘মিট দ্যা ডিসি

ছবি- ফরিদপুর মিট দ্যা ডিসি শিক্ষার্থী ও অতিথিবৃন্দের সাথে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার

ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের চিন্তাপ্রসূত উদ্ভাবনী পরিকল্পনা ‘মিট দ্যা ডিসি

  শিক্ষার্থীদের চিন্তার জগত পরিবর্তনের আহবান জানিয়েছেন ফরিদপুর জেলা প্রশাসক অতুল সরকার। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, একসময় অধিকাংশ শিক্ষার্থী না খেয়ে বিদ্যালয়ে যেত। এখন অবস্থার অনেকটা পরিবর্তন হয়েছে। অধিকাংশ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবার দেয়া হচ্ছে।

এর ফলে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা ও সহশিক্ষায় মনোনিবেশ হচ্ছে। তিনি বলেন, শিক্ষার নানা ক্ষেত্রে ব্যাপক ইতিবাচক পরিবর্তন আসলেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনতে হবে।

এখনো নানাবিধ সামাজিক বিধি নিষেধ দ্বারা শিক্ষার্থীদের বিশেষ করে ছেলে মেয়েদের মধ্যে সমতায় বৈষম্যের সৃষ্টি হচ্ছে। এ থেকে আজকের শিক্ষার্থীদের বেরিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের চিন্তার জগতে পরিবর্তন আনতে হবে। পরিবর্তন ছাড়া এগুনো যাবে না।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, অধিক পড়ালেখার পাশাপাশি সহশিক্ষায় শিক্ষার্থীদের এগিয়ে যাওয়ার ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হবে।

শিক্ষার্থীদের জ্ঞানী হতে হবে। প্রতিমাসে কমপক্ষে ১ টি করে গল্পের বই পড়তে হবে। আমাদের সম্পদ রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, জসীমউদ্দীন, মাইকেল মধুসূদন এদের হৃদয়ে ধারণ করতে হবে। এদের লেখা পড়তে হবে। তিনি ‘মিট দ্যা ডিসি প্রোগ্রামে এ কথা বলেন।

‘আট আনায় জীবনের আলো কেনার স্লোগানে ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের পরিকল্পনায় জেলার সকল শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত গ্রন্থমেলার মালিকানা সম্পর্কে ধারণা প্রদান করেন জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, গ্রন্থ মেলার মালিক জেলার সকল শিক্ষার্থী। তাদের সকলের অংশগ্রহণে এটি অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং আগামীতে হবে। লিখিত দলিলের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের হাতে গ্রন্থ মেলার মালিকানা প্রদান করা হবে বলে তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

শুক্রবার, ১৩ মার্চ, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত ‘মিট দ্যা ডিসি অনুষ্ঠিত হয়।

ফরিদপুর জেলা প্রশাসক  অতুল সরকারের নিজস্ব চিন্তাপ্রসূত উদ্ভাবনী পরিকল্পনা ‘মিট দ্যা ডিসি, যা প্রতি ইংরেজি মাসের শুক্রবার জেলা পর্যায়ে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অুনষ্ঠিত হচ্ছে। এবারের মিট দ্যা ডিসি ছিল ষষ্ঠ পর্ব।

নিজ নিজ স্কুলের শিক্ষার মান ও শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন, শিক্ষকদের শিক্ষা দান পদ্ধতির উন্নয়ন, মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা লাভ, নিজ জেলার উল্লেখযোগ্য বিষয়াবলী সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা লাভ, বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য বিষয়াবলী সম্পর্কে জ্ঞান সমৃদ্ধ হওয়া, শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যত স্বপ্ন সফল হতে সহায়তা, ২০৪১ সালের সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে ভূমিকা রাখার প্রত্যশায় ‘মিট দ্যা ডিসি অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

শিক্ষার্থীকে নিজ স্বাক্ষরিত কার্ড এবং উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিভিন্ন বিষয়ে লিখিত বই প্রদান করেন।

একই সাথে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘মিট দ্যা ডিসি প্রোগ্রামে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের নামের তালিকা প্রস্তুত করে দৃশ্যমান করার জন্য প্রতিষ্ঠান প্রধানদের অনুরোধ করেন। ‘মিট দ্যা ডিসি অুনষ্ঠানে জেলা প্রশাসন, সরকার ব্যবস্থা, জেলা ব্র্যান্ডিং, সম্পর্কে ধারণা প্রদান করেন জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।

একই সাথে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধায় দেশব্যাপী নানা কর্মসূচির মাধ্যমে মুজিব বর্ষ পালনের বিষয়েও শিক্ষার্থীদের মনোযোগ আকর্ষন করেন জেলা প্রশাসক।

এছাড়া আলোচনার উল্লেখযোগ্য বিষয় ছিলো প্রশাসনের কমের্র সাথে তাদের চিন্তাধারা ও গতিশীলতা আনয়নে করনীয়, নৈতিক মূল্যবোধে করনীয় নির্ধারন, দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠির উন্নয়নে কি ভাবনা, শিক্ষার্থীরা কে কি হতে চায়, দূর্নীতি রোধে কি করা যেতে পারে, সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড কিভাবে বাস্তবায়ন হতে পারে, মানসম্মত শিক্ষা ব্যবস্থা কিভাবে বাস্তবায়ন হতে পারে।

‘মিট দ্যা ডিসি অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ফরিদপুর জেলা, মহান স্বাধীনতা, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ সম্পর্কে তাদের ধারনা, অভিমত তুলে ধরে বক্তব্য প্রদান করে।

একই সাথে পড়ালেখার পাশাপাশি তাদের অন্যান্য কার্যক্রমের কথা উল্লেখ করেও বক্তব্য প্রদান করে। শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন বিষয়ের সমস্যা ও চিন্তাধারা মূলক বক্তব্য তার কাছে তুলে ধরেন। আন্তরিক পরিবেশে জেলা প্রশাসক ও শিক্ষার্থীদের এই আলোচনা চলে দুই ঘন্টাব্যাপী।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক)  রোকসানা রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)  মোহাম্মদ আসলাম মোল্লা, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  রিফাত আরা মৌরী,  তারেক হাসান, আশিক আহমেদ, জেলা শিক্ষা অফিসার  বিষ্ণু পদ ঘোষাল, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: তৌহিদুল ইসলাম, সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের সহযোগী অধ্যাপক রেজভী জামান, ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চক্রবর্তী শংকর, ফরিদপুর জিলা স্কুলের সহকারী শিক্ষক  মো: তানভীরুল ইসলাম, সাজেদা কবীর উদ্দিন পৌর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শওকত হোসেন, জোহরা বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  সুশীল চন্দ্র সাহা, গোয়ালচামট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দা মারিয়া আহমেদ, মুন্সির বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাহানাজ পারভীন, আলীপুর শিক্ষাকেন্দ্র সরকারি প্রাথিমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  নিলুফা বেগম প্রমুখ অংশগ্রহণ করেন।

‘মিট দ্যা ডিসিতে অংশগ্রহণকারী এ মাসের সৌভাগ্যবান শিক্ষার্থীদের মধ্যে রয়েছে ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন কলেজের সম্মান বর্ষের শিক্ষার্থী সৈয়দ আবু তালহা, সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী যথাক্রমে   প্রভাকর দাস সূর্য,  প্রত্যয় পাল,  দিল আফরোজ শ্রাবণী, জোহরা বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী  মো: আবদুল্লাহ, মুন্সীর বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী  আফিয়া ফারজানা, সাজেদা কবির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী  অন্তরা আক্তার, গোয়ালচামট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী  তরী সাহা, আলিপুর শিক্ষাকেন্দ্র সরকারি প্রাথিমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী  তাজরিন আক্তার।

জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সকাল সাড়ে ১০ টায় অনুষ্ঠান শুরু হয়। শুরুতে জেলা প্রশাসক  অতুল সরকার ‘মিট দ্যা ডিসিতে অংশগ্রহণকারী সৌভাগ্যবান ১০ জন শিক্ষার্থীর উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন।  অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক প্রত্যেক 

দ্যা ডিসি মূলতঃ সমাজের সকল ক্ষেত্রে শিক্ষার গুনগত মান বৃদ্ধির লক্ষে ফরিদপুর জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ‘সকল ক্ষেত্রে সেরা’ এমন দশ জন শিক্ষার্থীর সাথে জেলা সদরে জেলা প্রশাসকের সংগে এবং উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর সাথে সাক্ষাত ও বিভিন্ন বিষয়ে মতবিনিময়ের ক্ষেত্র। উপজেলা পর্যায়ে জেলার অনুরূপ কর্মসূচি ‘মিট দ্যা ইউএনও নামে অুনষ্ঠিত হচ্ছে।

 

 

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

মে ২০২১
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« এপ্রিল  
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১