• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং
জনগণকে ঘরে রাখতে ফরিদপুর জেলা পুলিশের নানা পদক্ষেপ

জনগণকে ঘরে রাখতে ফরিদপুর জেলা পুলিশের নানা পদক্ষেপ

জিল্লুর রহমান রাসেল, ফরিদপুর: করোনা ভাইরাসের ভয়ংকর থাবায় তটস্থ সারা বিশ্ব। প্রতি নিয়ত বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, মৃত্যুর মিছিলে যোগ হচ্ছে নতুন নতুন নাম। বাংলাদেশও করোনার এই ভয়ংকর থাবা থেকে রেহাই পাচ্ছে না। বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া (কোভিড-১৯) করোনা ভাইরাস সম্পর্কে জনগণ কে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ও সচেতনতা করে ঘরে ফেরাতে কঠোর অবস্থান নিয়েছেন ফরিদপুর জেলা পুলিশ। তারা বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে টহল অব্যাহত রেখেছেন।বিভিন্ন পয়েন্টে চলছে জিজ্ঞাসাবাদ।

জেলা পুলিশের পাশে দাঁড়িয়েছেন সদরে কর্তব্যরত সাংবাদিকেরাও। তারাও পুলিশের সাথে ঘর থেকে বের হয়ে আসা সাধারন মানুষদের সচেতন করছেন। পাশাপাশী তারা সচেতনামূলক প্রচার প্রচারণা অব্যাহত রেখেছেন। সারা দিন ব্যাপী শহরের জনসমাগম এড়িয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা, হাট-বাজার বন্ধ রাখাসহ সবাইকে ঘরে থাকতে সরকারি নির্দেশনামতে নানামুখী পদক্ষেপ লক্ষ্য করা যায়।

পুলিশের এই কঠোর অবস্থানের পরও শহরে নানান অজুহাতে বাহিরে থাকা মানুষকে ঘরে ফিরাতে গিয়ে পুলিশ বেশ হিমশিম খাচ্ছেন। সকাল থেকে সন্ধ্যা পযর্ন্ত ফরিদপুর পৌর এলাকা ও সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে নানান অজুহাতে বাহিরে থাকা মানুষদের ঘরে ফিরাতে গিয়ে পুলিশ কে বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
পুলিশের গাড়ির হুইসেল শুনলে লোকজন দৌড়ে পালাচ্ছে আর চলে যাওয়ার পর আবারও লোকজনসহ ইজি বাইক, ব্যাটারি চালিত রিক্সা ও মোটর বাইক চালকরা বেপরোয়া হয়ে উঠছে শহরের বিভিন্ন স্থানে। এসব কারণে শহরের বিভিন্ন স্থানে বসানো হয়েছে চেক পয়েন্ট।
এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রাশেদুল ইসলাম বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রভাব যাতে না পড়ে সে লক্ষে সরকার মানুষ কে ঘরে রাখার জন্য নানামুখী প্রচার-প্রচারণা এবং ছিন্নমুল মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণসহ অন্যান্য পদক্ষেপ নিলেও বিভিন্ন অজুহাতে মানুষ বাহিরে এসে যত্রতত্র সংঘবদ্ধ হয়ে আড্ডা করছে।শহরে জনগণ যাতে অকারণে ঘোরাফেরা না করে তাই আজ আমরা একটু কঠোর অবস্থান নিয়েছি, তাছাড়া আগামীকাল থেকে সবজির দোকানগুলো যাতে নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখে বসে এবং জনগনও যাতে নির্দিষ্ট দুরত্বে থেকে কেনা কাটা করে সে বিষয়ে সকাল থেকে ১ টা পর্যন্ত পুলিশের একাধিক টিম এখানে তদারকি করবে। এছাড়া ১ টার পর শুধু ওষুধের দোকান খোলা থাকবে এবং সন্ধা ৬ টার পর কোন লোকজন রাস্তায় বের হবে না, এ আইন অমান্য কারির বিরুদ্ধে শাস্তির ব্যবস্থা রয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।