• ঢাকা
  • সোমবার, ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং
অবশেষে দখলমুক্ত হলো রিকশা শ্রমিক সমিতির অফিস হেলমেট বাহিনী থেকে

ফরিদপুর সংবাদদাতা: ১৯ আগষ্ট ২০২০ বুধবার

শহরের কমলাপুর বায়তুল আমানের রেল লাইন এলাকায় ভয়ংকর হেলমেট বাহিনীর জবরদখলে থাকা কমলাপুর নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্হ্য রিকশা ও ভ্যান শ্রমিক সমিতির অফিসটি দখলমুক্ত হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা এ ঘটনায় ফরিদপুরের পুলিশ সুপারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

আজ বুধবার রিকশা শ্রমিক সমিতির একটি প্রতিনিধি দল ফরিদপুরের পুলিশ সুপারের সাথে সাক্ষাৎ করে এবিষয়ে তাঁকে অবহিত করেন। সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহসিন শেখসহ অন্যান্যরা জানান, ২০০৩ সালে পদ্মা নদীতে ভাঙ্গনের শিকার ভূমিহীন পরিবারদের সেসময়ে বায়তুল আমানের রেল লাইন এলাকায় সরকারী সিদ্ধান্তে পুনবার্সন করা হয়। এরপর ২০০৫ সালে তারা এখানকার রিকশা ও ভ্যান চালক শ্রমিকেরা একটি সমিতি গড়ে তোলে নিজেদের আর্থিক সহায়তা সৃষ্টির লক্ষ্যে। দীর্ঘদিন তারা সমিতিটি সুন্দরভাবে পরিচালনা করছিলেন। সমিতির সদস্যরা সাপ্তাহিক চাঁদা দিতো। সঞ্চয়ের পাশাপাশি তারা সঙ্কটে ও প্রয়োজনে ঋণ পেতো।

তারা জানান, ২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নিবার্চনের পর হেলমেট বাহিনী তাদের এই সমিতির কাযার্লয়টি জোরপূর্বক দখল করে তাদের সাইনবোর্ড সরিয়ে ফেলে। সমিতিতে তাদের চেয়ার টেবিল ও অন্যান্য আসবাবপত্র ফেলে সেখানে হেলমেট বাহিনীর অফিস গড়ে তোলে। পুলিশের অভিযানে হেলমেট বাহিনীর পতন হওয়ার পর তারা অফিসটি তালাবদ্ধ করে পালিয়েছে তারা।

এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার (১৮ আগষ্ট) বিকেলে বেদখল হয়ে যাওয়া অফিসটি পুনরুদ্ধারের দাবিতে সমিতির সদস্যরা মানববন্ধন করে। এরপর রাতেই আফজাল মোল্যা (৬২) নামে এক ব্যক্তি সমিতির তালাবদ্ধ অফিসের চাবি ফেরত দেন তাদের কাছে।

জানা গেছে, এই সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ সিরাজের মৃত্যুজনিতকারণে সভাপতির পদটি শুন্য থাকায় হেলমেট বাহিনী সমিতির অফিসটি দখলের পর আফজাল মোল্যা (৬২) কে সভাপতি করে নিজেদের মতো করে সমিতির অফিসটি ব্যবহার করতে থাকে। আফজাল মোল্যা জানান, সমিতির অফিস সহ এই এলাকা নিয়ন্ত্রণের প্রধান দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত ছিল সদর উপজেলার কৈজুরী ইউনিয়নের পশরা গ্রামের মান্নান মিয়ার ছেলে শাহিন (২৮)। তাদের সাথে ছিল তুহিন শেখ, রায়হান জমাদ্দার, রাজা মোল্যা, কামরুল মোল্যা, সরোয়ার মৃধা, কাওসার মৃধা, ফিরোজ খান, শাজাহান সাজু, সুজন খান, সুজাত শেখ, রানা মোল্যা, সবুজ মোল্যা, আলামীন মোল্যা, রাজিব ফকির ও রেজাউল। এখানে বসে তারা কিভাবে কি করা যাবে সেসব আলোচনা হতো। বিভিন্ন অফিসে টেন্ডারের বিষয়ে আলাপ হতো।

সরেজমিনে দেখা গেছে, হেলমেট বাহিনীর প্রধানের বিশ্বস্ত সেনাপতি শাহিন পশরা এলাকার বাসিন্দা হলেও বায়তুল আমানের পুকুর ও রাস্তার পাশের রেলের জমি দখল করে চালিয়েছে লাখ লাখ টাকার দোকান বাণিজ্য। রেলের জমিতে অনেকগুলো দোকান তৈরি করে তার নেতৃত্বে কারো কাছে ৭০ হাজার টাকায়, কারো কাছে ৬০ হাজার টাকায় সেসব দোকান ঘর বিক্রি করা হয়েছে। আর রাস্তার পাশে জেলা পরিষদের লম্বা খালের জমি দখল করে ওই খালের উপরে সে গড়ে তুলেছে সুবিশাল লম্বা একটি দোকার ঘর। দোকানের নাম ‘আল্লার দান‘। ওই দোকানটি সে একটি ফার্নিচার ব্যবসায়ীর কাছে ভাড়া দিয়ে রেখেছে।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান জানান, বিষয়টি তদন্তের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তদন্তপূর্বক অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্হা নেয়া হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

এপ্রিল ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মার্চ    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।