• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ই আগস্ট, ২০২২ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
মাদারীপুরে ভাসমান কৃষি ভিত্তিক গবেষণার এলাকা পরিদর্শনে উদ্বুদ্ধকরণ সফর অনুষ্ঠিত

নিরঞ্জন মিত্র ( নিরু) ( ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি) :-মাদারীপুরে ভাসমান বেডে সব্জি ও মসলা চাষ গবেষণা, সম্প্রসারণ ও জনপ্রিয় করণ প্রকল্প (বারি অংগ) এর অর্থায়নে গত ১৯ মার্চ শুক্রবার জেলার রাজৈর উপজেলার হিজলবাড়ী গ্রামে ভাসমান কৃষি ভিত্তিক গবেষণা এলাকা পরিদর্শন করা হয়।

এসময় পরিদর্শন করেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) অধীনে বরিশাল রহমতপুর আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক সহকারী ও স্টাফবৃন্দ।

উক্ত পরিদর্শনের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রে (বারি) এর মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. রফি উদ্দিন। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, (বারি) এর প্রধান মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মোঃ আককাছ আলী, বরিশাল আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও প্রকল্প পরিচালক ড. মো. মোস্তাফিজুর রহমান তালুকদার, প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. গোলাম কিবরিয়া, ড. মো. আলিমুর রহমানসহ বিজ্ঞানীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ত্ব করেন ফরিদপুর সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, বারি, অঞ্চল প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. সেলিম আহম্মেদ। অনুষ্ঠানটিকে আরও উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট বৈজ্ঞানিক সহকারী, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার কর্মী।

এসময় উদ্বুদ্ধকরণ পরিদর্শন অনুষ্ঠানে বক্তারা বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের ‘‘ভাসমান কৃষি’’ পদ্ধতি বিশ্ব কৃষি ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় বহির্বিশ্বে প্রযুক্তিটির পরিচিতির পাশাপাশি দেশের পরিচিতিও বৃদ্ধি পাচ্ছে ফলশ্রুতিতে বারি থেকে ভাসমান কৃষির উপযোগী জাত ও প্রযুক্তি কৃষি বিজ্ঞানী কর্তৃক উদ্ভাবন হচ্ছে এবং উদ্বুদ্ধকরণ সফরের মাধ্যমে তা কৃষক পর্যায়ে সম্প্রসারণ প্রয়োজন। প্রচলিত পদ্ধতিতে কৃষকেরা সাধারণতঃ বর্ষাকালে ভাসমান বেডে সবজি ও মসলা ফসলের চারা (লাউ, মরিচ, বোম্বাই মরিচ, সীম, পেঁপে, করলা, শসা, মিষ্টি কুমড়া, বরবটি প্রভৃতি) এবং সীমিত কয়েকটি সবজি (যেমন- লালশাক, পুঁইশাক, ঢেঁড়স, পানিকচু) এবং মসলা (যেমন- হলুদ) উৎপাদন করে। কিন্তু অনুন্নত জাতের ব্যবহার ও ভাসমান কৃষি ভিত্তিক আধুনিক প্রযুক্তির অভাবে প্রচলিত পদ্ধতিতে সবজি ও মসলা ফসলের কাঙ্খিত ফলন পাওয়া যায় না এবং উৎপাদিত চারাও মানসম্পন্ন হয় না। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি)এর বিজ্ঞানীরা দীর্ঘদিন যাবত গবেষণা করে সবজি ও মসলা ফসলের বেশ কয়েকটি উচ্চ ফলনশীল ও আধুনিক জাত উদ্ভাবন করেছেন যা ‘‘ভাসমান কৃষি’’ পদ্ধতিতে চাষের জন্য প্রর্বতন করা যেতে পারে। এছাড়াও বিভিন্ন প্রযুক্তি যেমন প্রচলিত ভাসমান বেডের উন্নয়ন, ভাসমান বেডে উৎপাদিত ফসলের বহুমুখীকরণ, সবজি ও মসলা ফসলের মানসম্পন্ন চারা উৎপাদন, ফসল পদ্ধতি ও কৃষিতাত্তি¡ক ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন, গাছের পুষ্টি/সার ব্যবস্থাপনা, সমন্বিত সবজি ও মাছ চাষ, ভাসমান বেডে শাকসবজি ও মসলা ফসলের ক্ষতিকারক পোকামাকড় ও রোগ-বালাই সনাক্তকরন ও তাদের জৈব বালাই ব্যবস্থাপনা, ইদুরের সমন্বিত জৈবিক দমন ব্যবস্থাপনা প্রভৃতি উদ্ভাবন হয়েছে যা উদ্বুদ্ধকরণ পরিদর্শনের মাধ্যমে কৃষক জানতে পারবে।

বক্তারা আরে বলেন, প্রাকৃতিক সম্পদের (কচুরীপানা) সুষ্ঠু ব্যবহার করে ভাসমান বেডে সবজী উৎপাদন করা সম্ভব। আধুনিক ভাসমান কৃষি প্রযুক্তি ব্যবহার করে একদিকে যেমন পুষ্টি সমৃদ্ধ ও নিরাপদ সবজী উৎপাদন করা সম্ভব তেমনি চাহিদার অতিরিক্ত সবজী বিক্রি করে চাষীর জীবনমান বাড়ানো সম্ভব। অত্র এলাকায় এ প্রযুক্তি ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আহবান জানানো হয়। এ সময় হিজলবাড়ী, রাজৈর, মাদারীপুরে ভাসমান বেডে টমেটো, পিঁয়াজ, মিষ্টি কুমড়া, চিচিংগা, শশা, মরিচ, ঢেড়শ, লালশাক, গিমাকলমী প্রভৃতি ফসলের চলমান গবেষণা কার্যক্রম দেখে উপস্থিত সকল অতিথিবৃন্দ এবং বৈজ্ঞানিক সহকারী/স্টাফগণ সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। এর ফলে উক্ত এলাকার বিভিন্ন কৃষক ভাসমান কৃষির উপর উৎসাহিত হয়েছেন এবং পরবর্তী মৌসুমে ভাসমান কৃষির পরিধি আরও বাড়াবেন বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

আগষ্ট ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« জুলাই  
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।