• ঢাকা
  • বুধবার, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং
রাজশাহীসহ সারা দেশে লকডাউন না মানায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি

নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী :

লকডাউন ভেঙে বাড়ছে করোনার ঝুঁকি। সর্বত্রই পদে পদে ভঙ্গ হচ্ছে লকডাউন। শুধু রাজশাহী নয়, দেশের বিভিন্ন জেলায় লকডাউন ভঙ্গ করে বাইরে বেরিয়ে আসছেন শতশত অসচেতন মানুষ।আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী এ সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করলেও কিছুতেই তা মানা হচ্ছে না। কেনাকাটার নাম করে, ডাক্তার দেখাবার নাম অথবা ওষুধ কেনার নাম করে বাইরে আসছেন অনেকেই। এভাবে নানা অজুহাতে ঘর থেকে বাইরে আসায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। পুলিশ প্রশাসন, সেনাবাহিনী ও র‌্যাবসহ সকল আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী ঘরে থাকার অনুরোধ জানিয়েও তেমন কাজ হচ্ছে না।
বেশ কয়েকদিন রাজশাহীতে কিছুটা লকডাউন পালিত হলেও রমজান শুরু হওয়ায় কয়েক দিন থেকে কাঁচাবাজারে দেখা যাচ্ছে মানুষের ভিড়।ঢিলেঢালা ভাবে পালিত হচ্ছে লক ডাউন।রাস্তায় নেই আগের মত পুলিশ,সেনাবাহিনীর তৎপরতা,আজ (২৯/০৪/২০২০ ইং) সারা শহর ঘুরে সরেজমিনে দেখা পুলিশের চেক পোস্ট খুব কম।রাস্তা,পথে ও হাট-বাজারে দিন দিন  যে হারে মানুষের ভিড় বাড়ছে তাতে যে কোন সময় এখানেও বেড়ে যেতে পারে করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্যা। রাজশাহী করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে ভাল অবস্থানে থাকলেও এরই মধ্যে একজন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এখানে শনাক্ত হয়েছে ৯ জন করোনা রোগী। এখনই সাবধানতা অবলম্বন না করলে বেড়ে যেতে পারে করোনা রোগী।সারাদেশে করোনাভাইরাসের রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে।  বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাস দীর্ঘস্থায়ী হবার কথা বলছে। অথচ ঢাকার সকল পোশাক কারখানা খুলে দেয়া হয়েছে। এতে দেশব্যাপী করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে যেতে পারে বলে অনেকেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।এরই মধ্যে শ্রমিক নেতৃবৃন্দ এবং চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা এর বিরোধিতা করে বলেছেন, এই সঙ্কটময় মুহূর্তে পোশাক কারখানা খুলে দিয়ে বিপদকেই ডেকে আনা হচ্ছে। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে বলে হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন তারা।যেখানে তৈরি পোশাক কারখানা অবস্থিত সেখানে করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এরপরও লকডাউন ভঙ্গ করে দূর দূরান্ত থেকে শ্রমিকদের ডেকে আনা হচ্ছে। এতে করে শ্রমিকদের জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে ঠেলে দেয়া হয়েছে বলে অনেকেই মন্তব্য করেছেন।শ্রমজীবী মানুষের কাছে জীবনের চেয়ে চাকরিটি খুবই মূল্যবান। তাই তারা লটডাউন ভঙ্গ করে জীবনের তোয়াক্কা না করে, করোনা আতঙ্ককে পায়ে মাড়িয়ে ঢাকায় ছুটে যাচ্ছেন।
এদিকে করোনা সংক্রমণে রাজশাহী বিভাগ বাদে দেশের সকল বিভাগের অবস্থা খারাপের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে ঢাকার অবস্থা আরও মারাত্মক। যে হারে করোনার রোগী বাড়ছে তাতে দিনদিন খারাপের দিকেই যাচ্ছে।এর ফলে করোনা আরও দীর্ঘস্থায়ী হবে এবং আশঙ্কাজনকভাবে বেড়ে যাওয়া আরও আতঙ্কজনক অবস্থার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।এ ব্যাপারে রাজশাহী জেলা সিভিল সার্জন ডা. এনামুল হক গণমাধ্যমকে জানান, করোনা প্রতিরোধে শারীরিক দূরত্ব অবশ্যই মেনে চলতে হবে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়া যাবে না। এ ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকার আহ্বান জানান তিনি।
কিন্তু সচেতনতা দূরের কথা,সন্ধ্যার পর পাড়া মহল্লায়,বিশেষ করে রাস্তা যেখানে সরু সেখানে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার গাড়ী প্রবেশ করতে পারে না।সেই সমস্ত জায়গায় চলছে লোকজনের জটলা।এমনকি ফ্লাক্সে করে চা বিক্রয় করতেও দেখা যাচ্ছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

ডিসেম্বর ২০২০
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« নভেম্বর  
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।