• ঢাকা
  • সোমবার, ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং
রাজশাহীতে শেষ সময়ে জমেছে কোরবানির পশুর হাট

আগামিকাল শনিবার কোরবানি ইদ। তাই শেষ সময়ে জমেছে কোরবানি পশুহাট। হাটজুড়ে ক্রেতা-বিক্রেতায় সরগম। পছন্দের পশু কিনেছেন অনেকেই। যদিও আজ শুক্রবার শেষ পশুহাটের কেনার দিন। এইদিনেও প্রচুর পশু কেনা-বেচা হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা। তবে ছোট গরুর দাম বেশি বলে জানায় ক্রেতারা।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে এবছর হাটে বিক্রেতা থাকলেও ক্রেতা কম ছিলো। তাই দামও অনেকটাই কম গেছে গত হাটগুলোতে। ওই হাটগুলোতে অনেকেই পছন্দের কোরবানির পশু কিনেছেন। যারা কিনতে পারেননি তারা আজ শুক্রবার কিনবেন কোরবানির পশু বলে জানায় ক্রেতা-বিক্রেতারা।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজশাহীর সিটিহাটে প্রচুর কোরবানির উপযুক্ত পশু তুলেছিলেন বিক্রেতারা। ক্রেতাও ছিলো চোখে পড়ার মতো। হাটে যাওয়া রাস্তার উপরে কোরবানির পশু বিক্রি জন্য নিয়ে দাঁড়ায় বিক্রেতারা। এছাড়া হাটের পুরো মাঠ ভড়েছে পশু ও ক্রেতা-বিক্রেতায়।

রাজিবুল ইসলাম নামের এক খামারি জানান, ‘দুইটা বিক্রি করেছি বাড়ি থেকে। তিনটা এনেছি হাটে। এর মধ্যে একটা বিক্রি হয়নি। দাম কম বলা গরু ফেরত নিয়ে গেছে। বড় গরু তো। ইদের হাটে বিক্রি না হলে পরে সমস্যা হবে। সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো বিক্রির জন্য।’

বাবু নামের আরেক ব্যবসায়ী জানান, হাটে গরুর দাম বলতে চাইনা ক্রেতারা। ক্রেতারা বুঝে গেছে করোনার কারণে সবকিছুর দাম কম। তাই গরুর দাম কম বলছেন তারা। চার মাস আগে ১ লাখ ৫ হাজার টাকায় কিনে ছিলাম গরু। এখন করোনার আগের বাজার হলে দাম ১ লাখ ৬০ থেকে ৬৫ হাজার টাকা। কিন্তু দাম বলছে ১ লাখ ২০ থেকে ২৫ হাজার। অন্যদিকে, ছয়জন মিলে রমজান আলীরা দুটি ছোট গরু কিনেছেন ১ লাখ ২৫ হাজার টাকায়। তিনি বলেন, গরুগুলো ভালোই হয়েছে সবাই বলছে। শেষ সময়ে কিনলাম রাখার জায়গার সমস্যার কারণে।

রাজশাহী সিটি পশুহাটের ইজারাদার আতিকুর রহমান কালু জানান, হাটে প্রচুর পশু রয়েছে। বেচা-বিক্রি মোটামোটি।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

এপ্রিল ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মার্চ    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।