• ঢাকা
  • সোমবার, ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং
ফরিদপুর চরভদ্রাসন চরাঞ্চলে বেড়েছে মাদকের দৌরাত্ব

ছবি প্রতিকী

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার গাজীরটেক ইউনিয়ন ও পদ্মা নদীর অপর পারের চরহরিরামপুর ইউযনিয়নে সম্প্রতী মাদকের দৌরাত্ব বাড়ছে বলে অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যানদের। গত ক’মাস ধরে লকডাউন চলাকালিন সময় থেকে উপজেলার ইউনিয়ন দু’টির দুর্গম চরাঞ্চলের বিভিন্ন হাট বাজারে ও বখাটে আড্ডাস্থলে ইয়াবা ট্যাবলেটের রমরমা বাণিজ্য চলছে বলে অভিযোগ।

গত ২৫ আগষ্ট উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় গাজীরটেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইয়াকুব আলী তার ইউনিয়নে বেপরোয়া মাদক বাণিজ্যর বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ তুলে ধরেন। এ নেশার জালে স্কুল কলেজের ছাত্র, উপজেলার বেশীরভাগ প্রবাসী পিতার ছেলেরা ও স্থানীয় যুবসমাজ মাদকাসক্ত হয়ে দিন দিন নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছে বলেও তিনি দাবী তোলেন।
এ ব্যপারে চরভদ্রাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজনীন খানম বলেন, “ স্থানীয়রা মাদক নিয়ে আমাদের কাছে কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ বা বার্তা দেয় নাই, তারপরও আমরা বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে ইতিমধ্যে ক’য়েক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার পূর্বক বিচারকী আদালতে পাঠিয়েছি”।
উপজেলার গাজীরটেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইয়াকুব আলী জানান, ইউনিয়নের বেড়িবাঁধ সড়ক, নতুন বাজার, রাঞ্চারাম বিশ্বাসের ডাঙ্গী গ্রামের দোয়রী পট্টি নামক মহল্লা, পদ্মা পারের বিন্দু ডাঙ্গী গ্রাম ও চরহাজীগঞ্জ বাজার এলাকায় অবাধ মাদক বাণিজ্য চালানো হচ্ছে। এলাকার মাদক ব্যবসায়ী চম্পা রানী (৫০) বাচ্চু (৩০), আউয়াল (৪৫), লিটন (৩৮), সামসুদ্দিন ওরফে সামু (৩৫) ও আরিফ (৩৫) পুলিশের হাতে গ্রেফতারের পর কেউ কেউ জামিনে মুক্ত হয়ে আবারও এলাকায় মাদকের রমরমা ব্যবসা করে চলেছে।
সূত্র জানায়, উক্ত ইউনিয়ন ঘেষে জেলা শহর ফরিদপুর, হাট গজারিয়া ও কৃষ্ণপুর হাটের রাস্তা দিয়া অবাধে চলে আসছে ইয়াবা ট্যাবলেট ও গাঁজা। এসব পচারকৃত মাদক ইউনিয়নের চরহাজীগঞ্জ বাজারের মাদক সম্রাজ্ঞী চম্পা রানী (৫২) ও চা-পান দোকানের আড়ালে অসীম সরকার (৪৫) তাদের সুনির্দিষ্ট ক্রেতাগণের কাছে বিক্রি করে চলেছে। উক্ত বাজারের পার্শ্ববতী বেড়িবাঁধ সড়ক এলাকায় বাচ্চু (৩০) ও তার সহযোগীরা মাদক বিক্রি করছে। এছাড়া ইউনিয়নের দোয়ারী পট্টি এলাকায় চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী সামসুদ্দিন ওরফে সামু (৩৫) সহ তার সহযোগীরা মাদক ব্যাবসা করে চলেছে।
এছাড়া উপজেলা পদ্মা নদীর অপর পারে চরহরিরামপুর ইউনিয়নে দুর্গম চরাঞ্চলের বিভিন্ন হাট বাজারে রমরমা মাদক ব্যবসা চলছে হচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। উক্ত ইউনিয়নের মুন্সির বাজারে সন্ত্রাসী চক্র ও মাদক ব্যবসায়ীরা প্রশাসন বিচ্ছিন্ন নিরাপদ জায়গা মনে করে জমজমাট ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে। স্থানীয় সূত্রগুলো জানান, ২০১৬ সালের ১৪ এপ্রিল দুই স্কুল ছাত্রী গণধর্ষনের ঘটনার যাবজ্জীবন কারাদন্ডে রায় প্রাপ্ত প্রধান আসামী উজ্জল খান (৩০) দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর সম্প্রতী মাঝে মধ্যে সে উক্ত বাজারে বিচরন করছে এবং ইয়াবা ব্যবসার মূল হোতা হিসেবে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছে। উজ্জল খানের প্রধান সহযোগী শেখ শাহীন (২৮) এলাকায় ডন নামে পরিচয় প্রদানকারী বখাটে মাদকের বড় চালান এনে চরাঞ্চলে রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। খোজ নিয়ে জানা যায়, উক্ত সন্ত্রাসী চক্র মাদক ব্যবসা ছাড়াও ইদানিং এলাকায় চাঁদাবাজী ও দখলদারী কাজে লিপ্ত রয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উক্ত চরের এক মাতুব্বর জানান, “ ধর্ষন মামলায় উজ্জল খানের যাবজ্জীবন কারাদন্ড রায় হওয়ার পর সে জীবনের মায়া ছেড়ে দিয়ে দিনভর আড়ালে থেকে রাতের আধারে চরাঞ্চলে একটি স্বক্রীয় বাহিনী দিয়ে মাদক ও বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা করে যাচ্ছে। এ চক্রের ভয়ে এলাকার কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না বলেও জানা যায়।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

এপ্রিল ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মার্চ    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।