• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে মে, ২০২৪ ইং
ফরিদপুরে স্বামী বিবেকানন্দের জীবন ও বাণী নিয়ে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য

বাংলা তথা সমগ্র ভারতবর্ষের সবচেয়ে বিখ্যাত দার্শনিক ছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ। তিনি একজন দার্শনিক ছাড়াও ছিলেন লেখক ও সঙ্গীতজ্ঞ মানুষও। তাঁর লেখা প্রত্যেকটা বই আজও সকল বাঙালী তথা সমগ্র বাংলা ভাষাভাষীকে সমানভাবে মুগ্ধ ও অনুপ্রাণিত করে চলেছে।

কোলকাতার নরেন্দ্রপুরের রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রমের সম্পাদক স্বামী সর্বলোকানন্দজী মহারাজের সভাপতিত্বে আয়োজিত এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথির স্ত্রী যশোর মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তন্দ্রা ভট্টাচার্য, পুলিশ সুপার মোঃ আলীমুজ্জামান, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী মোঃ আব্দুর রশিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুম রেজা, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এ্যাডঃ সুবোল চন্দ্র সাহা, যশোর রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রমের অধ্যক্ষ স্বামী জ্ঞানপ্রকাশানন্দ প্রমুখ। স্বাগত ভাষণ দেন মাগুরা সরকারিহোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের সহযোগী অধ্যাপক রণজয় কুমার দে। বক্তারা বলেন,

 

দার্শনিক, ধর্মিয়-সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, রামকৃষ্ণ মিশন প্রতিষ্ঠাতা স্বামী বিবেকানন্দ এক অনন্য সাধারণ প্রতিভা। যিনি আধুনিক কালের ধর্ম-সংস্কৃতি এবং পরোক্ষভাবে ভারতীয়দের জাতীয় আত্মচেতনার রূপ দিতে সাহায্য করেছিলেন। উত্তরাধিকারসূত্রে প্রাপ্ত হিন্দুধর্মীয় জীবনব্যবস্থা, আচরণ ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অভ্যস্ত হওয়া সত্ত্বেও তিনি হিন্দুধর্মের বহু আদর্শিক বিচ্যুতির কড়া সমালোচক ছিলেন। তিনি একটি ভাবাদর্শ প্রচার এবং একটি সম্পূর্ণ নতুন কর্মসূচি প্রদান করেছিলেন। তাঁর সময়ের তুলনায় বহু দিক থেকে প্রাগ্রসর চিন্তার অধিকারী ছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ। এই বিবেকানন্দের জন্য ভারতবর্ষের যুবকেরা জাগ্রত হয়েছিল। তার জীবন দর্শন ও বাণী যদি আমরা মেনে চলতে পারি তাহলে সমাজে এত মারামারি, হানাহানি, অন্যায়, অবিচার, লুট তরাজ হিংসা – বিদ্বেষ এগুলো থাকবে না।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

মে ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« এপ্রিল    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।