• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফরিদপুরে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন

ছবি- নারী দিবস শুভ উদ্বোধন করছেন এমপি মোশাররফ হোসেন

ফরিদপুরে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন

আজ ৮ মার্চ, আন্তর্জাতিক নারী দিবস। ১৯৭৫ সাল থেকে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বিশ্বব্যাপী পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস। তারই অংশ হিসেবে ফরিদপুরে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস। 

এবারের নারী দিবসের মূল প্রতিপাদ্য বা স্লোগান নির্ধারণ করা হয়েছে – “প্রজন্ম হোক সমতার, সকল নারীর অধিকার”।

কবি জসীমউদ্দীন হল প্রাঙ্গণে সকাল ৯.৩০ টায় বেলুন উড়িয়ে দিবসটির উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি। পরে এ উপলক্ষে জসীমউদ্দীন হলে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

জেলা প্রশাসন ও জেলা মহিলা অধিদপ্তরের আয়োজনে, জেলা প্রশাসক অতুল সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফরিদপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবেক মন্ত্রী ইন্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোংঃলোকমান হোসেন মৃধা, পুলিশ সুপার মোঃ আলীমুজ্জামান, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এ্যাড. সুবোল চন্দ্র সাহা।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম সম্পাদক ঝর্ণা হাসান, শহর আওয়ামীলীগ সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকার লেভী, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম, কোতোয়ালী আওয়ামীলীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ রাজ্জাক মোল্লা, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এএইচএম ফুয়াদ, ফরিদপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোঃ ইমতিয়াজ হাসান রুবেল,  জেলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক জেসমিন ফেরদৌসী শিখা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা অধিদপ্তরের উপপরিচালক মাশউদা হোসেন।

প্রধান অতিথি বলেন, নারীদের ওপর হওয়া বৈষম্য, নির্যাতনের বিরুদ্ধে করা প্রতিবাদে নারীদের জাগ্রত করাই নারী দিবস পালনের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য । আপনারা জানেন নারীদের অধিকার নিশ্চিত করতে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এই সমাজ ব্যবস্থাকে ঘুড়ে দাঁড়াতে হলে নারী পুরুষ সম অধিকারী হতে হবে। শেখ হাসিনা নারীর যে ক্ষমতায়ন করেছেন তা পৃথিবীতে  বিরল ঘটনা। 

নারী দিবসের রঙ নির্ধারিত হয়েছে বেগুনি এবং সাদা, যা নারীর প্রতীক। বেগুনি রঙ নির্দেশ করে সুবিচার ও মর্যাদা, যা দৃঢ়ভাবে নারীর সমতায়ন।

এ নারী দিবস পালনের পটভূমি হচ্ছে এই দিনে আমেরিকায় ঘটে যাওয়া এক আন্দোলন। ১৮৫৭ সালের ৮ মার্চ নিউইয়র্কের সুতা কারখানায় কর্মরত নারীশ্রমিকরা সড়কে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হন । সেদিন বেতন বৈষম্য, নির্দিষ্ট কর্মঘন্টা আর কাজের বৈরি পরিবেশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে নারীরা একজোট হলে তাদের উপর কারখানা মালিকেরা আর মদদপুষ্ট প্রশাসন দমন-পীড়ন চালায়। প্রায় অর্ধশতাব্দী পর ১৯০৮ সালে জার্মানীতে এ দিনটি স্মরণে প্রথম নারী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় । ১৯১০ সালে ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন। ১৭টি দেশ থেকে প্রায় ১০০ জন নারী প্রতিনিধি এতে অংশ নিয়েছিলেন।

এ সম্মেলনেই প্রথমবারের মত ক্লারা প্রতি বছরের ৮ মার্চকে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস’ হিসেবে পালন করার প্রস্তাব দেন।

এ প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে ১৯১৪ সাল থেকে বেশ কয়েকটি দেশে ৮ মার্চ নারী দিবস পালিত হয়। বাংলাদেশে ১৯৭১ সাল থেকেই ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে.

১৯৭৫ সালে জাতিসংঘ ৮ মার্চ দিনটিকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালনের আহবান করলে এরপর থেকে সারা বিশ্বব্যাপী দিনটি পালিত হয়ে আসছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

নভেম্বর ২০২০
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« অক্টোবর  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।