• ঢাকা
  • সোমবার, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ ইং
ভাঙ্গায় মাছ কেনা নিয়ে গ্ৰামবাসির মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে আহত-১০

ছবিতে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সড়কের দুই পাশে হাজার হাজার লোকজন

মোঃ রমজান শিকদার,
ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি-১০/০২/২৩

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার পুখুরিয়া মাছ বাজারে মাছ কেনা নিয়ে গ্ৰামবাসির মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়। সংঘর্ষে গুরুতর আহতদের ভাঙ্গা উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পুখুরিয়া গ্রামের সুলতান মাতুব্বর (৫০), ওমর মাতুব্বর (৪৫),আয়নাল মাতুব্বর (৪০), সেকেন মোল্লা (৬৪) কে জেলা সদরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০ টার দিকে।
ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জিয়ারুল ইসলাম বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে দ্রুত উপস্থিত হয়ে দুই পক্ষের মাঝে অবস্থান নেই। সড়কের দুই প্রান্তে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে কয়েক হাজার গ্ৰামবাসি অবস্থান নিলেও পুলিশের প্রতিরোধের কারনে ভয়াবহ সংঘর্ষে রূপ নিতে পারেনি।
ভাঙ্গা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ হেলাল উদ্দিন ভুইয়া বলেন,মাছ কেনা নিয়ে বিরোধ হয়। এ সময় দুই জনকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটে। এরপর হাজারো গ্ৰামবাসি সংঘর্ষে জড়াতে চেষ্টা করে। পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, ভাঙ্গা উপজেলার মানিকদহ ও নুরুল্লাগঞ্জ ইউনিয়ন এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুটি দল রয়েছে। এক দলের নেতৃত্ব দেন মানিকদহ ইউনিয়নের পুখুরিয়া গ্রামের করিম মাতুব্বর ও অপর পক্ষের নেতৃত্ব দেন নুরুল্লাগঞ্জ ইউনিয়নের আমির হোসেন।

প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক ব্যক্তি জানান, শুক্রবার পুখুরিয়া মাছ বাজারে মাছ কেনা নিয়ে করিম মাতুব্বরের পক্ষের রুহুল মাতুব্বরের সাথে আমির হোসেন মীরের তর্ক হয়। এ সময় হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এরপর দু’পক্ষের লোক বাজারে জড়ো হয়। এ সময় আমির হোসেনের পক্ষ নিয়ে বাজারের মাংস বিক্রেতারা করিম মাতুব্বরের দুই ছেলেকে কুপিয়ে জখম করে। উক্ত সংবাদ গ্ৰামবাসির মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষের হাজার হাজার লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সড়কের দুই পাশে অবস্থান নেয়।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

জুলাই ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জুন    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।