• ঢাকা
  • শনিবার, ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং
বাদুড়ের আছে মারাত্মক ভাইরাস বহনের অস্বাভাবিক ক্ষমতা!

আমাদের সম্মিলিত মহামারী অভিজ্ঞতা আমাদের গভীরভাবে সচেতন করেছে যে বাদুড় মারাত্মক ভাইরাস বহন করার অস্বাভাবিক ক্ষমতা রাখে। তার পরও তারা এখনো টিকে আছে। বাদুড়ের এই অস্বাভাবিক ক্ষমতাসহ ভাইরাসের প্রতিরোধ সম্পর্কে আমরা এখনো কিছু জানি না। তবে নতুন জিনোম সিকোয়েন্সগুলো কিছু সংকেত সরবরাহ করতে পারে।

নিউইয়র্কের স্টনি ব্রুক বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবর্তন ও সংরক্ষণ জীববিজ্ঞানী লিলিয়ানা ড্যাভালোস বলেছেন, পরিশীলিত সংখ্যাতাত্ত্বিক বিশ্লেষণের সিরিজকে ধন্যবাদ…আরএনএ ভাইরাস সহ্য করতে এবং কাটিয়ে উঠতে শক্তিশালী ক্ষমতাসহ বাদুড়ের সুপারপাওয়ারের পেছনে দায়ী জিনগত গঠন উদ্ভাবন শুরু করেছি।

বাদুড়ের ছয় প্রজাতির জিনোমকে অন্যান্য স্তন্যপায়ী জিনোমের সঙ্গে তুলনা করে গবেষকরা প্রমাণ পেয়েছেন, বাদুড়ের প্রতিরোধ ব্যবস্থা অন্য স্তন্যপায়ী প্রাণীর কাছে অনন্য উপায়ে কাজ করে। ভাইরাসগুলোর বিরুদ্ধে তারা কীভাবে লড়াই করে ঠিক সেগুলো আরো ভালোভাবে বুঝতে পারলে সেটা আমাদের লড়াইয়ে সহায়তা করতে পারে।

ভাইরাস প্রতিরোধী এ সুপারপাওয়ার বিশ্বের বিভিন্ন পরিবেশে বাদুড়কে বিকশিত হতে দিয়েছে। তারা এখন সব জীবিত স্তন্যপায়ী প্রজাতির ২০ শতাংশ এবং তাদের ১ হাজার ৪০০টিরও বেশি প্রজাতি চিহ্নিত হয়েছে। জীবাণু বহনের অস্বাভাবিক ক্ষমতা সত্ত্বেও তারা আমাদের বাস্তুতন্ত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আম, কলাসহ কমপক্ষে ৫০০টি উদ্ভিদ প্রজাতির পরাগায়ন বাদুড়ের ওপর নির্ভর করে। এছাড়া অন্যান্য অনেক গাছপালা তাদের আবর্জনার ওপর নির্ভর করে এবং মশাসহ কিছু প্রজাতির পোকামাকড়কে তারা খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করে। তাদের প্রতিরোধক্ষমতা বোঝা এবং ভাইরাস সংক্রামক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আমাদের আরো নিরাপদ সহাবস্থানে সহায়তা করতে পারে।

ড্যাভালোস ব্যাখ্যা করেন, আমরা গাছের জীবন জুড়ে নতুন বৈশিষ্ট্য ও ক্রিয়াকলাপগুলো বিবর্তনের গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়া হিসেবে জিনের আরো অনেক বেশি নকল ও ক্ষয় খুঁজে পাই। বাদুড়ের জিনোমের মধ্যে দলটি খুঁজে পেয়েছিল আমরা জীবাশ্ম ভাইরাস হিসেবে কী ভাবতে পারি। ভাইরাস জিনের পুরনো ক্ষুদ্র অংশ যেগুলো বাদুড়ের জিনোমে প্রবেশ করানো হয়েছিল এবং পরে প্রজন্ম ধরে চলে গেছে। মানুষেরও এই জীবাশ্ম ভাইরাস রয়েছে এবং তারা জেনেটিক স্মৃতির মতো আমাদের বিবর্তনীয় ইতিহাসের মাধ্যমে ভাইরাল সংক্রমণের একটি রেকর্ড সরবরাহ করে।

এই অনুসন্ধানগুলো ক্রমবর্ধমান প্রমাণকে সমর্থন করে যে বাদুড়গুলো বেশির ভাগ স্তন্যপায়ী প্রাণীর চেয়ে ভাইরাল সংক্রমণ বেশি সহ্য করতে এবং বেঁচে থাকতে পারে। সম্ভবত বাদুড় একদিন জীবাণুগুলোর মতো তাদের অ্যান্টিভাইরাস সুপারপাওয়ারও আমাদের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিতে পারবে।

সায়েন্স অ্যালার্ট

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

এপ্রিল ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মার্চ    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।