• ঢাকা
  • শনিবার, ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং
চুলের যত্নে সর্ষে তেলের যাদু!

মাথায় ঘন কালো চুল থাকলে কার না ভাললাগে! কোনও ব্যক্তি, বিশেষত মেয়েদের সৌন্দর্য ফুটে ওঠে তার চুলের মাধ্যমে। কিন্তু বর্তমানে অতিরিক্ত দূষণ, অগোছালো জীবনযাত্রার কারণে কম-বেশি সবাই চুল পড়ে যাওয়া, চুল রুক্ষ-শুষ্ক হয়ে যাওয়া এবং চুলে ফাটল ধরা নিয়ে চিন্তিত। এই সব সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে অনেকেই হাজার হাজার টাকা খরচ করে হেয়ার ট্রিটমেন্ট করে, আবার মার্কেট থেকে বিভিন্ন হেয়ার প্রোডাক্ট কিনে ব্যবহার করে। এত কিছু করার পরেও চুলের খুব একটা উন্নতি চোখে পড়ে না। এমন পরিস্থিতিতে চুলের যত্নের জন্য আপনি সর্ষে তেল ব্যবহার করতে পারেন।

প্রত্যেক ভারতীয়, বিশেষত বাঙালীদের রান্নাঘরে যাই থাকুক না কেন, সর্ষে তেল থাকবেই থাকবে। এই তেল বিভিন্ন রান্নায় ব্যবহার করা ছাড়াও এর অনেক ঔষধি গুণাগুণও আছে। পাশাপাশি এটি ত্বক বা চুলের পরিচর্যাতেও ব্যবহার করা হয়। চুলে সর্ষে তেল নিয়মিত ব্যবহার করলে চুল রুক্ষ, শুষ্ক হয়ে যাওয়া থেকে মুক্তি পেতে পারেন। সর্ষের তেলে উপস্থিত বিভিন্ন উপাদান আমাদের চুলকে স্বাস্থ্যজ্বল, মসৃণ এবং সুন্দর করে তোলে।

চুলের জন্য সর্ষে তেল

১) চুল বাড়ে ও চুল পড়া কমে
সর্ষে তেলে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে, যা চুল বড় হতে সাহায্য করে। এছাড়াও, চুলে নিয়মিত সর্ষের তেল মালিশ করলে চুলের ফলিকল মজবুত হয়ে চুল পড়া বন্ধ হবে।

বর্ষাকালে ঘরোয়া উপায়ে চুলের যত্ন নিন

২) কন্ডিশনারের মতো কাজ করে
সর্ষে তেলে থাকে আলফা ফ্যাটি অ্যাসিড, যা চুলকে সুন্দর, মসৃণ ও স্বাস্থ্যজ্বল রাখে। এছাড়াও এটি চুলের জন্য প্রাকৃতিক কন্ডিশনারের কাজ করে। তাই, চুল দ্রুত বৃদ্ধি হয়।

৩) রক্ত সঞ্চালন হয়
চুল রুক্ষ, শুষ্ক হয়ে গেলে মাথার তালুতে নিয়মিত সর্ষের তেল মালিশ করুন। এর ফলে মাথার তালুতে রক্ত সঞ্চালন ঠিক ভাবে হবে এবং চুলের গোড়া মজবুত হবে।

৪) ভিটামিন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ও অ্যান্টি ফাঙ্গাল উপাদান
সর্ষে তেলে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে। মিনারেল এবং বিভিন্ন ভিটামিন থাকে সর্ষে তেলে। এছাড়াও থাকে জিঙ্ক, বিটা ক্যারোটিন ও সেলেনিয়াম, যা চুল লম্বা হতে সাহায্য করে। সর্ষে তেলে অ্যান্টি ফাঙ্গাল উপাদান থাকায় তা চুলের খুশকি ও চুলকানি দূর করে। ফাঙ্গাসে চুলের গোড়া বুজে গিয়ে চুল পাতলা হয়ে যাওয়ার সমস্যা সমাধান করে সর্ষে তেল।

চুলে সর্ষে তেল ব্যবহারের পদ্ধতি
১) লেবু ও সর্ষে তেল
সর্ষের তেল, লেবুর রস ও ধনে গুঁড়ো একসঙ্গে মিশিয়ে চুলে মাখুন। কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন। এর ফলে চুল মজবুত হবে এবং খুশকিও দূর হবে।

২) কলা ও সর্ষে তেল
একটা পাকা কলার সঙ্গে সর্ষের তেল ও দই ভালোভাবে মাখুন। মিশ্রণটা মাথায় লাগান এবং আধ ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন। তবে কখনোই এরপর হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করবেন না। এটি করার পর আপনার চুল মসৃণ, মজবুত ও নরম হবে।

৩) অ্যালোভেরা ও সর্ষে তেল
সর্ষে তেলের সঙ্গে অ্যালোভেরা মিশিয়ে তা মাথায় লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। তারপর শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে দু’দিন এই পদ্ধতি অবলম্বন করলে অনেক উপকারে আসবে।

৪) টক দই ও সর্ষে তেল
টক দইয়ের সঙ্গে সর্ষে তেল মিশিয়ে মাথার তালুতে বা পুরো মাথায় ভালভাবে লাগান। এরপর তোয়ালে গরম জলে ভিজিয়ে ৩০-৪০ মিনিট মাথায় পেঁচিয়ে রাখুন। তারপর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে ভালভাবে চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার বা দু’বার এই পদ্ধতি প্রয়োগ করতে পারেন।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

এপ্রিল ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মার্চ    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।