• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং
Mujib Borsho
Mujib Borsho
প্রতিরোধ ক্ষমতা ও দৈহিক শক্তি দুই বাড়বে প্রোটিন, প্রতিদিন কতটা পরিমান খেতে হবে

ছবি-সংগৃহীত

প্রোটিন আমাদের দেহে অনেকগুলি কার্য সম্পাদন করে এবং শক্তি সরবরাহ করতে সহায়তা করে। কোষের রক্ষণাবেক্ষণর, হরমোন উৎপাদন, রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার কার্যক্ষমতায়, এনজাইমগুলি ক্রিয়া, হিমোগ্লোবিনের মাধ্যমে দেহে অক্সিজেন বহন করার ক্ষেত্রে প্রোটিনগুলি প্রয়োজনীয় এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ নেয়। এছাড়াও, প্রোটিন প্রতিরোধ ক্ষমতাও বৃদ্ধি করতেও সহায়ক বলে মনে করা হয়।  সংক্রমণ দূরে রেখে প্রতিরোধ ব্যবস্থা সুস্থ রাখতে সহায়তা করে প্রোটিন। প্রোটিনের অভাবে শরীরে বার বার সংক্রমণের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ব্যক্তির বয়স, ওজনের উপর নির্ভর করে শরীরে কতটা পরিমান প্রোটিনের প্রয়োজন। পাশাপাশি তিনি প্রতিদিন কী এবং কত সময় কাজ করেন এবং তার শারীরিক ক্রিয়াকলাপগুলি কী তা নির্ভর করে।

গর্ভাবস্থায় বা কিছু কিছু রোগের ক্ষেত্রে প্রোটিনের পরিমাণ বাড়ানো দরকার হয়। কোনও ব্যক্তির ওজন যদি ৬০ কেজি হয় তবে তার প্রোটিনের প্রয়োজন হবে প্রতিদিন ৬০ গ্রাম।

পুষ্টিবিদেরাও পরামর্শ দেন যে, পুরুষদের দৈনিক কমপক্ষে ৬০ গ্রাম প্রোটিন গ্রহণ করা উচিত এবং মহিলাদের প্রতিদিন ৫৫ গ্রাম প্রোটিন গ্রহণ করা উচিত। শিশুদের জন্য, এটি প্রতিদিন ১৬ গ্রাম থেকে ৬০ গ্রামের মধ্যে হতে পারে।

আপনি যদি নিরামিষ খাদ্য গ্রহণ করেন তবে আপনার ডায়েটে অর্ধেক প্রোটিন শস্য থেকে পাওয়া দরকার। তবে কেবলমাত্র শস্যজাত খাদ্যে শরীরের প্রোটিনের প্রয়োজনীয় চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হয় না।

অতএব আপনার ডায়েটে প্রোটিনের গুণমান উন্নত কিছু অতিরিক্ত বিষয় নজর দিতে হবে। ভারতীয়রা বরাবরই ভাত বা রুটির সঙ্গে যে কোনও ডালের একটি পদ রাখেন। এর সঙ্গে সঙ্গে যদি দুগ্ধজাত খাদ্য যুক্ত করা হয় তবে এটি পর্যাপ্ত মানের প্রোটিন বজায় রাখতে সহায়তা করতে পারে।

প্রোটিন উদ্ভিদজাত খাদ্য এবং প্রাণীজ খাদ্য উভয়তেই উপস্থিত রয়েছে। উদ্ভিদ-ভিত্তিক খাদ্য যেমন শস্য, ডাল, লেবু, বাদাম, শুকনো ফল, শষ্যদানা এবং দুগ্ধজাত পণ্য নিয়মিত প্রোটিনের আরও গুরুত্বপূর্ণ উৎস।

প্রাণীজ প্রোটিনের মধ্যে রয়েছে মাংস, হাঁস-মুরগি, দুধ, ডিম এই সমস্ত খাবারে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে। এগুলি ছাড়াও কিছু শস্য যেমন যব, বাজরা এবং কাইনওয়াও প্রোটিন রয়েছে।

যে ব্যক্তিরা অপুষ্টিতে আক্রান্ত, কোনও রোগ থেকে নিরাময়ের চেষ্টা করছেন, প্রবীণ ব্যক্তিরা যারা খাবারের মাধ্যমে পর্যাপ্ত প্রোটিন পাচ্ছেন না, যাদের ক্ষুধা বোধ হয় না বা যাদের প্রোটিনের উচ্চ প্রয়োজনীয়তা রয়েছে যেমন – পেশাদার ক্রীড়াবিদ তাদের ডায়েটে এই খাদ্যগুলি রাখা অত্যন্ত প্রয়োজন।

তবে ব্যক্তির শরীরে প্রোটিনের প্রয়োজন আছে কি না এবং তা থাকলেও কতটা পরিমান প্রয়োজন সে সম্পর্কে একজন দক্ষ ডায়েটিশিয়ানের সঙ্গে পরামর্শ করা উচিত।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

ডিসেম্বর ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« নভেম্বর  
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।