• ঢাকা
  • সোমবার, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ ইং
আলফাডাঙ্গায় হাসপাতালে রোগী দেখতে গিয়ে হামলার স্বীকার স্কুল শিক্ষক

আলফাডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ হাসপাতালে রোগী দেখতে গিয়ে এক স্কুল শিক্ষক প্রতিপক্ষের হাতে হামলার স্বীকার হয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায়। হামলার স্বীকার হওয়া ওই শিক্ষকের নাম মাসুদ শরীফ (৪০)। তিনি উপজেলার বুড়াইচ ইউনিয়নের পাকুড়িয়া গ্রামের আনোয়ার শরীফের ছেলে। মাসুদ শরীফ ফরিদপুর শহরের মুন্সি বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

এদিকে এ ঘটনায় ওই স্কুল শিক্ষকের পিতা আনোয়ার শরীফ আট জনকে অভিযুক্ত করে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আলফাডাঙ্গা উপজেলার পাকুড়িয়া গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে দু’টি পক্ষের চরম বিরোধ চলে আসছে। মাঝেমধ্যেই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটছে। এরই জের ধরে গত বৃহস্পতিবার সকালে স্কুল শিক্ষক মাসুদ শরীফের প্রতিবেশী চাচী রিজিয়া বেগমকে প্রতিপক্ষের লোকজন হাত ভেঙ্গে গুরুতর আহত করে। পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। এদিকে এই খবর জানতে পেয়ে ওইদিন বিকালে স্কুল শিক্ষক মাসুদ শরীফ তার চাচীকে দেখার উদ্দেশ্যে হাসপাতালে যান। পথিমধ্যে হাসপাতালের সামনে গেলেই পূর্বপরিকল্পিত ভাবে ওঁৎ পেতে থাকা ইউপি সদস্য মিটু মোল্যার নেতৃত্বে আরও ৬-৭ জন ব্যক্তি স্কুল শিক্ষক মাসুদ শরীফের ওপর হামলা চালায়। পরে হামলাকারীরা তাকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় ঘটনাস্থলে থাকা স্থানীয় জনতা অভিযুক্ত চার জনকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশে দেয়। বর্তমান স্কুল শিক্ষক মাসুদ শরীফ ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এবিষয়ে জানতে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মিটু মোল্যার সাথে মুঠোফোন যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘মাসুদ শরীফ আমাদের লোকজনকে মেরে হাসপাতালে গিয়েছিল। তাই হাসপাতাল থেকে তাকে মারা হয়েছে।’

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এম এ জলিল বলেন, ‘স্কুল শিক্ষক হামলার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পরে মামলায় পাঁচ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়।’

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

জুলাই ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জুন    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।