• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং
পুঠিয়া হোম কোয়ারেন্টাইন থাকা পরিবারের মাঝে পৌর মেয়রের উপহার
৫০টি ব্যাগে সাজানো হয়েছে মুড়ি, খেজুর, ছোলা, চাল-ডাল, তেলসহ ১২ টি পদের উপঢৌকন। তার উপরে কাগজে লেখা ‘উপহার, মনে সাহস রাখবেন আমি মেয়র পুঠিয়া পৌরসভা সব সময় আপনাদের পাশে আছি থাকবো’।
পৌরসভা এলাকায় বাইরে থেকে আসা হোম কোয়ারেন্টইনে থাকা পরিবার গুলোর মানসিক শক্তি যোগাতে এমন অভিনব প্রক্রিয়ায় উপহার সামগ্রী দিচ্ছেন রাজশাহীর পুঠিয়া পৌরসভার মেয়র রবিউল ইসলাম রবি।
গতকাল শুক্রবার পহেলা মে মেয়র নিজে পৌরসভার ভেতরে যে সকল পরিবার হোম কোয়ারেন্টইনে আছে তাদের বাড়িতে গিয়ে উপহার সামগ্রী ঘরে ঘরে দিয়ে আসেন। বাড়ির সামনে থেকে মেয়র দূরত্ব বজায় রেখে সকল ব্যক্তির সঙ্গে কথাও বলেন। জানান মাহে রমজানের শুভেচ্ছা। ভয় না পেয়ে তাকে মানসিক সাহস জোগানের পরামর্শ দেন। জানিয়ে আসেন- ‘ভয় নেই, পুঠিয়া পৌরসভার তাদের পাশেই আছে। শুধু ধর্য্য ধরুন কয়েক সপ্তাহ। এদিকে পুঠিয়া পৌরসভা এলাকায়  প্রায় শতাধিক বাড়ি হোম কোয়ারেন্টইনে আছে। তাদের সকলের জন্য পৌরসভার পক্ষ থেকে রমজানের খাদ্যসামগ্রী পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে মেয়র।
শুক্রবার বিকেলে ৩০ টি হোম কোয়ারেন্টইনে থাকা বাড়ির সামনে যান। আর উপহার হিসেবে ঘরের দরজার সামনে রেখে আসেন চাল, ডাল, শাক-সবজি, তেল, মুড়ি, কলা, খেজুর, ডালসহ ১২ ধরনের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য। ৫০ টি ব্যাগে সাজিয়ে এসব নিয়ে যাওয়া হয়।
জানতে চাইলে মেয়র রবিউল ইসলাম রবি বলেন, এই সময়ে প্রতিটি দিন তাদের কাটছে হতাশায়। তাই সাহস দেওয়ার জন্যই আমি গিয়েছি। তাদের বাইরে বের না হওয়ার জন্য অনুরোধ করেছি ও ১৪ দিন পার হলে যেন বাইরে বের হয়। আর কেউ অসুস্থ্য হলে যেন আমায় জানায়’ তিনি বলেন, পৌর সভার পক্ষ থেকে চাল-ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি দেয়া হচ্ছে সকল ওয়ার্ডে। তারপরেও মানসিক শক্তি জোগানোর জন্য আবারও উপহারসামগ্রী নিয়ে গিয়েছি। খারাপ সময় কাটিয়ে যেন পুরো বছরটা তাদের ভালো কাটে সেই প্রত্যাশা করেছি।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।