• ঢাকা
  • শনিবার, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং
করোনার পরবর্তী আতরঘর যুক্তরাষ্ট্র

ছবি-সংগৃহিত

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫২,৯৭৬ জনে। গতকাল মঙ্গলবার ২৪ ঘণ্টায় এক দিনে মারা গেছেন ১৬৩ জন, সব মিলিয়ে এ সংখ্যা ৭০৪। করোনার সংক্রমণে আক্রান্ত-মৃতের সংখ্যা যেভাবে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে তাতে করে যুক্তরাষ্ট্র এই ভাইরাসের নতুন উপকেন্দ্র হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস এ আশঙ্কার কথা প্রকাশ করেন। সরাসরি এক সাংবাদিক তাকে প্রশ্ন করেন, ‘আপনার কি মনে হয় ইউরোপকে পেছনে ফেলে যুক্তরাষ্ট্রই হতে যাচ্ছে এ মহামারির উপকেন্দ্র?’

হ্যারিস তেমনই সম্ভাবনা দেখতে পাচ্ছেন, ‘আমরা দেখতে পাচ্ছি, যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ অনেক বেশি বেড়ে গেছে। তাই এমন (করোনাভাইরাসের উপকেন্দ্র) সম্ভাবনা আছে। আমরা এখনই বলছি না যে তা হয়ে গেছে, কিন্তু সেই সম্ভাবনা আছে।’

বিশ্বের বেশির ভাগ করোনার সংক্রমণের খবর আসছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে। হ্যারিসও স্বীকার করলেন এ কথা, ‘মহামারিটা এখনও ইউরোপেই বেশি, যুক্তরাষ্ট্রেও আছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৫ শতাংশ সংক্রমণই হয়েছে ইউরোপিয়ান অঞ্চল ও যুক্তরাষ্ট্রে।’

করোনার সংক্রমণ রুখতে কয়েকটি দেশের পদক্ষেপের প্রশংসা করলেন তিনি, ‘অনেক দেশই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, একই সঙ্গে পুরো সমাজকে কোয়ারেন্টাইনে রাখার মতো শক্তিশালী পদক্ষেপ নিচ্ছে। ভাইরাসের সংক্রমণ কমিয়ে আনতে এটা কার্যকরী উপায়। তবে এ ভাইরাসকে পরাজিত করতে এবং থামাতে দেশগুলোকে খুব আগ্রাসী কৌশলে যেতে হবে। প্রত্যেক সন্দেহভাজনকে পরীক্ষা করাতে হবে, আইসোলেশনে রেখে প্রত্যেক অসুস্থ ব্যক্তির খেয়াল রাখতে হবে এবং তাদের সংস্পর্শে যারা ছিল তাদেরও কোয়ারেন্টাইনে আনতে হবে।’

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

ডিসেম্বর ২০২০
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« নভেম্বর  
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১ 
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।