• ঢাকা
  • সোমবার, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ ইং
করোনা শব্দ উচ্চারণ নিষেধ যে দেশে

বর্তমানে বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে আলোচিত শব্দ ‘করোনাভাইরাস’। দৈনন্দিন জীবনের সঙ্গে যেন শব্দটি মিশে গেছে। কিন্তু শব্দটিই নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে মধ্য এশিয়ার দেশ তুর্কমেনিস্তান।

দেশটির নাগরিকদের জনসম্মুখে বিশেষ করে রাস্তাঘাট, বাস স্টপেজগুলোতে এই শব্দ নিয়ে আলোচনা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যদি কোনো নাগরিক এই আইন অমান্য করে তবে তাকে জেল জরিমানার সম্মুখীন হতে হবে। এছাড়া করোনার এই সংকটময় মুহূর্তে আরো কিছু অদ্ভুত আইন করেছে দেশটি।

চলতি মার্চ মাসের ১৩ তারিখ দেশটির রাষ্ট্রপতির অনুমোদনক্রমে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে স্বৈরাশাসনের জাতাকলে পিষ্ট দেশটিতে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা না থাকায় বেশ কয়েক হাত ঘুরে রিপোর্টটি সম্প্রতি প্যারিসভিত্তিক রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারের হাতে পৌঁছায়। এরপর তা সম্মুখে আসে।

গণমাধ্যমকর্মীদের স্বাধীনতা নিয়ে কাজ করা সংগঠনটি জানিয়েছে, তুর্কিমেনিস্তানের সরকারের তরফ থেকে দেশের স্বাস্থ্য তথ্য সম্বলিত একটি ছোট পুস্তিকা বিলি করা হয়। দেশের নাগরিকদের স্বাস্থ্য খাতের হাল হকিকত জানাতে স্কুল, হাসপাতাল ও কর্মক্ষেত্রে এটি বিলি করা হয়। এই পুস্তিকায় করোনাভাইরাস শব্দটি নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, ফেস মাস্ক ব্যবহার এবং করোনাভাইরাস নিয়ে বলাবলি করলে যেকোনো সময় সাদা পোশাকের পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হতে পারেন বলে জানানো হয়।

দেশটির সরকারি দপ্তর থেকে ব্যাখ্যা দিয়ে বলা হয়, করোনার মহামারির আতঙ্ক থেকে জনগণের মানসিক সুরক্ষার জন্যই এই আইন করা হয়েছে।

যদিও এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। তবে প্রতিবেশী দেশ ইরান করোনায় ইতোমধ্যেই বিপর্যস্ত অবস্থায় আছে। আরেক প্রতিবেশী রাশিয়াও রয়েছে মহাঝুঁকিতে।

ফেসবুকে লাইক দিন

তারিখ অনুযায়ী খবর

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।